উকুলেলের সুরে চিরদিনই-নীলাঞ্জনা মেডলি, নজর কাড়ল Nandy Sisters


হাইলাইটস

  • ‘চিরদিনই তুমি যে আমার, যুগে যুগে আমি তোমারই, আমি আছি সেই যে তোমার, তুমি আছো সেই আমারই…’, হাতে সিগনেচার উকুলেলে।
  • ম্যাচিং পোশাক।
  • নন্দী সিস্টার্সের সুরের মূর্ছনায় ফের মাতল নেটপাড়া।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: ‘চিরদিনই তুমি যে আমার, যুগে যুগে আমি তোমারই, আমি আছি সেই যে তোমার, তুমি আছো সেই আমারই…’, হাতে সিগনেচার উকুলেলে। ম্যাচিং পোশাক। নন্দী সিস্টার্সের সুরের মূর্ছনায় ফের মাতল নেটপাড়া। ‘অমর সঙ্গী’র এভারগ্রিন গানটিতে নারী কণ্ঠ ছিল আঁশা ভোঁসলের। বলিউডের আশা তাইয়ের সেই গানটির প্রথম ছত্র গাওয়ার পরেই অভিনব এক টুইস্ট। শুরু হল বাংলার অপর এক চিরকালীন রোমান্টিক গান- ‘হাজার কবিতা, বেকার সবই তার, তার কথা কেউ বলে না… সে প্রথম প্রেম আমার নীলাঞ্জনা…’।

অনন্য জাদুতে মেডলিটি বানিয়ে ফেলেছেন অন্তরা এবং অঙ্কিতা নন্দী। মাত্র ৩১ সেকেন্ডের একটি রিল ঝড় তুলেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। দর্শক সংখ্যা ৭১ হাজার। লাইক এবং লাভ রিঅ্যাক্টের বন্যা বইছে।

আসলে দীর্ঘদিন ধরেই নেটিজেনরা অন্তরা-অঙ্কিতার গলায় বাংলা গান শুনতে চাইছিলেন। রিল আপলোড করার ঘণ্টাখানেক আগে অন্তরা লেখেন, ‘আমরা বহুদিন ধরেই বাংলা গানের অনুরোধ পাচ্ছিলাম। তাই আজ একটি বাংলা গান গাইব। ভীষন একসাইটেড! আপনারা তৈরি তো’?

ছবি সৌজন্য- ইনস্টাগ্রাম

বাকিটা ইতিহাস। লাইক, শেয়ারের পাশাপাশি দুই শিল্পীর কমেন্ট বক্সও উপচে ওঠে এ দিন। কেউ লেখেন, ‘বিউটিফুল’। কেউ লেখেন ,’সুপার্ব’। কেউ আবার নস্টালজিক হয়ে পড়লেন। নীলাঞ্জনা রায় নামের এক ফেসবুক ইউজার লেখেন, ‘নচিকেতার এই গানটি আজও আমার খুব প্রিয়। শুধু নামের মিলের জন্য নয়। তবে এর জন্য স্কুলে অনেকে মজা করত’।


মিস্টু দত্ত লেখেন, ‘জাস্ট ওয়াও! তবে আরও বাংলা গান শোনাতে হবে কিন্তু’।


প্রসঙ্গত, অসমের বাসিন্দা তাঁরা। অন্তরা নন্দী সা রে গা মা পা লিটল চ্যাম্পের টপ থ্রিতে পৌঁছেছিলেন। অন্তরার ছোট বোন অঙ্কিতাও দুর্দান্ত সঙ্গীত শিল্পী।

নিজের গাড়ি কেনার স্বপ্ন ছেড়ে সতীর্থ ইউটিউবারের চিকিৎসায় সাহায্য Bong Guy-এর
সোশ্যাল মিডিয়া আইকন হিসেবে তিনিও নজর কেড়েছেন। সঙ্গীতশিল্পী দুই বোনের জুটি বর্তমানে জনপ্রিয় Nandy Sisters হিসেবে।

‘লেডিজ কামরায় কী হয়’?
ডুওর ‘তাকাইয়াকা মাকাঝুম’ ইতিমধ্যেই সুপার ডুপার হিট। কিছুদিন আগে বাহুবলি টু ছবির ‘কানহা সো যা জরা’ গানটি শুধুমাত্র উকুলেলে এবং টুল ব্যবহার করে গেয়েছিলেন তাঁরা।





Continue Reading

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.