করোনার উত্তর ‘গুগাবাবা’ বা ‘হীরক রাজার দেশে’


হাইলাইটস

  • গত বছর থেকেই করোনার প্রভাবে সিনেমা হলগুলির ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত।
  • সিনেমা হলের এই দুঃসময়ে যদি সত্যজিৎ রায় কোনও ছবি নিয়ে আসতেন?
  • তা হলে কেমন হতো বিষয়টা?

অন্য সময়: করোনায় একের পর এক বন্ধ হচ্ছে বাংলা সিনেমা হল। ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া সিনেমা হল মালিকরা, এ সময়ে সত্যজিৎ রায়ের ছবি চালালে কোন ছবি চালাতেন দর্শক ফেরাতে? দেবলীনা ঘোষ কথা বললেন

গত বছর থেকেই করোনার প্রভাবে সিনেমা হলগুলির ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত। বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকার পর যখন হল গুলো খুললো, দর্শক হয়নি তেমন। এখন আবার করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রকোপে বন্ধ বেশিরভাগ সিঙ্গল স্ক্রিন। সিনেমা হলের এই দুঃসময়ে যদি সত্যজিৎ রায় কোনও ছবি নিয়ে আসতেন? তা হলে কেমন হতো বিষয়টা? ব্যবসা বাড়ানোর জন্য সত্যজিতের কোন ছবিটা হলে চালাতেন কতৃর্পক্ষ? এই প্রশ্ন নিয়েই আমরা পৌঁছে গিয়েছিলাম একাধিক হল মালিকের কাছে। তাঁরা কী উত্তর দিলেন?

‘কাজ পাব তো?’ শেষ জীবনে কেরিয়ার নিয়ে অনিশ্চয়তায় ভুগতেন ঋষি!
এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে হেসে ফেললেন নবীনা হলের কর্ণধার নবীন চৌখানি। তাঁর বক্তব্য ‘নবীনা’ তিনি খুলতেন না। করোনার জন্য কিছুটা সতর্কতা অবলম্বন করেই হল বন্ধ রেখেছেন তিনি। তাই দর্শকদের সুরক্ষিত রাখতেই তিনি হল বন্ধ রাখতেন। তাঁর মনে হয় সত্যজিতের দর্শকরাও আসতেন না সিনেমা দেখতে। কেন? ‘আমার মনে হয় সত্যজিৎ রায়ের ছবি যাঁরা দেখেন, তাঁরা অত্যন্ত বুদ্ধিদীপ্ত মানুষ। তাই তাঁরা কোনও ছবির জন্যই হল মুখী হতেন না। এই অবস্থায় যেখানে প্রতিদিন এত মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন, মারা যাচ্ছেন-সিনেমা দেখার ঝুঁকি নেওয়ার কোনও মানে হয় না’, বক্তব্য তাঁর। তবে নবীনের ব্যক্তিগত পছন্দ ‘নায়ক’। যা তিনি আপাতত বাড়িতে বসেই দেখতে চান। ‘অজন্তা’ সিনেমা হলের পক্ষ থেকে শতদীপ সাহার মত তিনি সত্যজিৎ রায়ের ক্লাসিক ছবি গুলোর উপর বাজি রাখতেন। তা ‘পথের পাঁচালী’ হোক বা ‘নায়ক’ বা ‘আগন্তুক’। তাঁর মতে এই ছবি গুলোর আবেদন কোনওদিন পুরোনো হবে না বাঙালি দর্শকের কাছে। শতদীপ বলছেন, ‘এখন ডিজিটালি ছবি দেখানো হয় সিনেমা হলে। সত্যজিৎ রায়ের ক’টা ছবি ইচ্ছে করলেও চালাতে পারবো, সেটা সত্যিই জানি না। কারণ সেই সময় আর এখনকার টেকনোলজি আলাদা। তবে দর্শক চাইলে চেষ্টা করতাম অবশ্যই’।

‘মিনার-বিজলী-ছবিঘর’-এর কর্ণধার সুরঞ্জন পালের মতে তাঁর তুরুপের তাস হতো বিনোদন মূলক ছবি গুলোর উপর। ‘মজার ছবির কোনও বিকল্প নেই। আমার মনে হয় না ‘গুপী গাইন বাঘা বাইন’-এর থেকে বিনোদন মূলক কোনও ছবি হতে পারে না। তাই অবশ্যই ‘গুপী গাইন বাঘা বাইন’ চালাতাম। গোয়েন্দা ছবি তখনও দর্শক পছন্দ করতেন। এখনও করেন। তাই আসল ফেলুদা সিরিজ বড় পর্দায় দেখতে পেলে দর্শকরা খুশি হবেন। আমি সত্যজিৎ রায়ের তৈরি ফেলুদার ছবি গুলোও চালাতে চাই’, বলছেন সুরঞ্জন। এখানেই অবশ্য শেষ নয় তাঁর তালিকা। কিছুটা ইতস্তত করে বলেই ফেললেন, ‘এখনকার পরিস্থিতি দেখে ‘হীরক রাজার দেশে’ চালানোর কথাও ভাবতে পারি। কারণ এটাই বোধহয় সব থেকে বেশি উপযুক্ত হবে। চারপাশে যা চলছে!’

করোনাবিধি শিকেয় তুলে শ্যুটিং! গ্রেফতার জনপ্রিয় বলিউড নায়ক সহ পুরো টিম
মুম্বইয়ের সুপারস্টারের আগামি ছবির জন্যও হল খুলতে নারাজ তিনি। তবে বিষয় সত্যজিৎ হলে অরিজিৎ দত্ত দু’টো ছবি বেছে নিতেন ‘প্রিয়া’য় চালানোর জন্য। এত গুলো ছবির মধ্যে থেকে মাত্র দু’টো কেন বাছতেন? অরিজিতের উত্তর ব্যক্তিগত পছন্দ আর সমষ্ঠির পছন্দ। এই দুটো বিষয়কে গুরুত্ব দিতেন তিনি। অরিজিৎ বলছেন, ‘ ‘গুপী গাইন বাঘা বাইন’ বড় পর্দায় দেখতে সব সময় ভালো লাগে। তাই অবশ্যই এই ছবিটা বেছে নিতাম আমি। সব বয়সী দর্শককে হলে নিয়ে আসা যেত এই ছবিটা দিয়ে। যা এই মুহূর্তে ভীষণ প্রয়োজন। আর একটু গম্ভীর ছবি বাছতে হলে আমি ‘অরণ্যের দিনরাত্রি’ বেছে নেব। এই ছবিটার আবেদন চিরন্তন। কখনও পুরনো হওয়ার নয়।’

নবীন চৌখানির মতোই অনেকটা একই সুরে কথা বললেন ‘বসুশ্রী’র দেবজীবন বসু। দর্শকদের উপর ভিত্তি করেই যেহেতু ব্যবসা চলে, তিনি চান দর্শকরা সুস্থ থাকুক। তার জন্য কিছুদিন হল বন্ধ রাখতে রাজি তিনি। তবে সত্যজিৎ রায়ের ছবি চালাতে তিনি এক কথায় রাজি। অপু ট্রিলজি বা ‘সোনার কেল্লা’ চালাতে পারলে তিনি খুশি হবেন। কিন্তু যদি বর্তমান পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে ছবি পছন্দ করতে হয় তা হলে তিনি অন্য ছবি বাছবেন। ‘সত্যজিৎ রায়ের কোনও একটা দুটো ছবি বেছে নেওয়া খুব মুশকিল। এই সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়েও তাঁর একাধিক ছবি রয়েছে। আমি বেছে নেব ‘হীরক রাজার দেশে’ আর ‘গণশত্রু’। এই ছবি গুলো যেন সব সময়ের জন্যই ভীষণ উপযুক্ত’, বলছেন তিনি।

পরিস্থিতি কবে ঠিক হবে কেউ জানি না। হল কবে খুলবে তাও জানা নেই কারও। কিন্তু ভেবে দেখুন তো, এই ছবি গুলো এখন সিনেমা হলে চললে আপনি কি দেখতে যেতেন? আমাদের সমীক্ষা কিন্তু ইতিবাচক উত্তরই দিচ্ছে।

টাটকা ভিডিয়ো খবর পেতে সাবস্ক্রাইব করুন এই সময় ডিজিটালের YouTube পেজে। সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন।



Continue Reading

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.