|

গানের শুটিং করতে থাইল্যান্ডে যাচ্ছেন শাকিব-বুবলী!

বর্তমান সময়ের সবচেয়ে আলোচিত ও সমালোচিত  জুটি শাকিব-বুবলীর “একটি প্রেম দরকার মাননীয় সরকার” সিনেমার শুটিং শুরু হচ্ছে থাইল্যান্ডে। তবে  আগামী মাসে একটি গানের মধ্য দিয়ে সিনেমার কাজ শুরু হবে  এমনটিই  জানিয়েছেন  ছবির প্রযোজক সেলিম খান। ছবিটি পরিচালনা করছেন পরিচালক শাহিন-সুমন।এর আগে শাহিন-সুমন শাকিব ও অপুকে নিয়ে নির্মাণ করেছিলেন ‘লাভ ম্যারেজ’ ছবিটি, যা ঐ বছরের সবচেয়ে  বেশি ব্যবসা সফল সিনেমা এবং সুপারহিটের তকমা পেতে সক্ষম হয়।

সেলিম খান বলেন, “আমরা আগামী মাসের ২ তারিখ থেকে ‘একটি প্রেম দরকার মাননীয় সরকার’ ছবির শুটিং শুরু করব থাইল্যান্ডে। শুরুতে আমরা ছবির চারটি রোমান্টিক গানের শুটিং করব। তারপর ঈদের জন্য ছোট বিরতি দিব শিল্পী ও কলা কুশলীদের।  এরপর ঈদের পরে আবারও ছবির শুটিং শুরু করব ইনশাআল্লাহ”। তবে  মাঝে নায়িকা বুবলী এই ছবিতে কাজ করবেন না বলে জানিয়েছেন। এ বিষয়ে জানতে চাইলে সেলিম খান বলেন, ‘দেখেন আমরা যাঁরা একসঙ্গে কাজ করি, আমরা একটা পরিবার। আর পরিবারে মধ্যে অনেক কিছুই হয়, আবার তা ঠিকও হয়ে যায়। বুবলীকে আমি ছোট বোনের মতো পছন্দ করি। তিনি আমার ছবিতে কেন কাজ করবেন না। সবাই দোয়া করবেন, আমরা যেন ভালোভাবে ছবির কাজটি শেষ করতে পারি।’

সেলিম খান আরো বলেন, ‘আমরা দুই বছর ধরে চেষ্টা করছি দর্শকদের ভালো ছবি উপহার দিতে। এখন সাফটা চুক্তির মাধ্যমে ভারতের ছবি আমাদের দেশে মুক্তি পাচ্ছে। কিন্তু আমাদের দেশের ছবি ভারত গিয়ে তেমন কোন  অবস্থান করতে পারছে না। অথচ আমাদের দেশের গর্ব সুপারস্টার শাকিব খান কিন্তু  কলকাতাতেও ভীষণ জনপ্রিয়। আমি মনে করি, সুন্দর ছবি নির্মাণ করতে পারলে শুধু বাংলাদেশ নয়, সেটি ভারতসহ বিশ্বের সব দেশে জায়গা করে নেবে।’

উল্লেখ্য  ‘একটি প্রেম দরকার মাননীয় সরকার’ ছবিটি প্রযোজনা করছে শাপলা মিডিয়া। গত ২৬ জুন ঢাকার একটি পাঁচতারকা হোটেলে ছবির মহরত অনুষ্ঠিত হয়। একই প্রতিষ্ঠানের ‘ক্যাপ্টেন খান‘ শিরোনামে আরেকটি ছবি আসন্ন ঈদের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে। গত ঈদে মুক্তি পেয়েছে একই প্রতিষ্ঠানের নির্মিত উত্তম আকাশ পরিচালিত ‘চিটাগাংইয়া পোয়া নোয়াখাইল্লা মাইয়া’ ছবিটি, যা এখনও দেশের বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে দর্শকরা উপভোগ করছে।

 

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.