|

গোপন পদ্ধতে ঘরে তৈরি করুন সহজেই কিছু দারুণ ফেস প্যাক

বাজারে বিক্রি হচ্ছে নানা রকম ভেজাল সামগ্রীআপনি তরিতরকারি দৈনন্দিন খাবারে ব্যবহৃত সামগ্রী দিয়েও সহজেই নিজের রূপকে অপরূপ করে তুলতে পারেন এতে ব্যয়ও যেমন কম, আর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বললেই চলে

.কলার ফেস প্যাক: টি মাঝারি পাঁকা কলা ভাল করে চটকে নিন সারা মুখে মেখে ১৫২০ মিনিট অপেক্ষা করুন শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন এটি আপনার ত্বকের কালো দাগ দূর করবে ত্বক অনেক নরম হবে আরো ভাল ফলাফল পেতে চাইলে কলার সাথে / কাপ দই টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন

.দুধের ফেস প্যাক: / কাপ গুড়ো দুধ পানি দিয়ে গুলিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এটি আপনার সারা মুখে ভাল করে লাগান। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি ত্বক উজ্জল কোমল করবে

.লেবুর ফেস প্যাক: / লেবুর রস,/ কাপ অলিভ অয়েল বা আমন্ড অয়েল ভাল করে মিশিয়ে মুখে,ঘাড়ে গলায় লাগিয়ে রাখুন। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন

.আটা ফেস প্যাক:
. রান্না ঘরের আটা আপনার ত্বক পরিচর্যায় অনেক সহায়ক হতে পারে যে ধরনেরই ত্বক হোক না কেন, আটা সব ত্বকের জন্যেই ভালো কাজ করে টেবিল চামচ পরিষ্কার আটা নিয়ে তার সাথে গরুর কাঁচা দুধ, একটু কাঁচা হলুদ বাটা মিশিয়ে মুখে মেখে ১০/১৫ মিনিট রেখে মুখ ধুয়ে ফেলবেন

. আটা পানিতে ফুটিয়ে পেস্টের মতো করে মুখমন্ডলে লাগালে মুখের ছিট ছিট তিলে দাগ অনেক হালকা হয়ে যায়

. বেসনের মতো আটা হাতে নিয়ে পানি দিয়ে পেস্ট করে মুখে লাগিয়ে সাবানের মতো মুখ পরিষ্কার করা যায়

. দুধের সরের সাথে আটা কাঁচা হলুদ মিশিয়ে মুখে মেখে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলবেন

.ডিমের ফেস প্যাক: ডিমের ফেসপ্যাকটা ত্বকের ধরণ অনুযায়ি ব্যবহার করতে হবে

শুষ্ক ত্বকের জন্য: ডিমের সাদা অংশ হলুদ অংশ আলাদা করে নিন হলুদ অংশ ভাল করে ফেটিয়ে নিনসারা মুখে লাগিয়ে শুকাতে দিন কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন

তৈলাক্ত ত্বকের জন্য: ডিমের সাদা অংশের সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস বা মধু মিশিয়ে মুখে লাগানশুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন

স্বাভাবিক ত্বকের জন্য: সম্পূর্ণ ডিম ভাল করে ফেটিয়ে নিনমুখে লাগিয়ে শুকাতে দিন৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন

.দই ফেস প্যাক: আপনি যদি দ্রুত ত্বক উজ্জল করতে চান তবে দই একটি কার্যকরি পণ্য। কোন অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগেও এটি দিয়ে ফেসিয়াল করে যেতে পারেন। একটু দই সারামুখে ভাল করে লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। অন্যভাবে ব্যবহার করতে হলে টেবিল চামচ দই, টেবিল চামচ কমলার রস, চা চামচ অ্যালোভেরা জেল ভাল করে মিশিয়ে নিন। এটি মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন

.ভিনেগার ফেস প্যাক: ভিনেগার ভাল স্কিন টোনার হিসেবে কাজ করে। টেবিল চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার কাপ পানি ভাল করে মিশিয়ে নিন। সকলে মুখ ধোয়ার আগে এই মিশ্রন ত্বকে লাগান

.ওটমিল ফেস প্যাক: / কাপ গরম পানিতে / কাপ ওটমিল গুলিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি মিনিট রেখে দিন এর মধ্যে টেবিল চামচ দই টেবিল মধু মিশিয়ে নিন। একটি ডিম ভেঙ্গে কুসুম সাদা অংশ আলাদা করে নিন। এই মিশ্রণে ডিমের সাদা অংশ মিশিয়ে বিট করে নিন। এই মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে ১৫২০ মিনিট ধরে শুকান।শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন

. শসা ফেস প্যাক:
শসার গুণের কথা বর্ণনা করে শেষ করা যাবে না। শসা যেমন রান্নাবান্নায়, খাওয়াদাওয়ায় ব্যবহৃত হয় তেমনি ব্যবহৃত হয় রূপচর্চায়

. মুখে কোনো কালো দাগ পড়লে কচি শসার রস মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নেবেন। এভাবে কিছুদিন নিয়মিত লাগালে দাগ উঠে যায়

. শসার রসের সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মুখে মেখে শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নিলে মুখের রং উজ্জ্বল কোমল হয়। তবে নিয়মিত কিছুদিন করতে হবে

. অনেক সময় দেখা যায় চোখের নিচে অনেকেরই কালো দাগ পড়ে। শসার রস নিয়মিত মাখলে দাগ দূর হবে

. মনে রাখবেন যদি কেউ ফর্সা হতে চান তবে নিয়মিত শসার রসের সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে মুখে, হাতে গায়ে নিয়মিত মাখলে গায়ের রং ফর্সা হয় অথবা শসা পাতলা পাতলা করে কেটে মুখে ঘসে নিতে পারেন। পরে শুকোলে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে নেবেন। তৈলাক্ত ত্বকের জন্যে শসা খুবই উপকারী। তবে কাঁচা ব্রণের ওপর লেবুর রস লাগালে দাগ হয়। তার জন্যে শুধু শসার রসই ভালো

. মুখকে রোদ থেকে বাঁচাতে, মুখের দাগ তুলতে ময়লা থেকে যদি রেহাই পেতে চান তবে শসার সাহায্যে একটি ফেসপ্যাক বানিয়ে ২৫/৩০ মিনিট রেখে প্রথমে গরম পানি, পরে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিয়ে আপনি নিশ্চিন্তে বাইরে বেড়িয়ে আসতে পারেন। এতে ত্বক সারাদিনের জন্যে যেমন চকচকে, মসৃণ কোমল থাকবে তেমনি বাইরের নানান জীবাণু থেকে ত্বক রেহাই পাবে

এবার জেনে নিন কীভাবে প্যাকটি তৈরি করবেন। একটি কচি শসা পাতলা করে কেটে থেঁতো করে তার সাথে একটি ডিমের কাঁচা কুসুম, এক টেবিল চামচ গুঁড়ো দুধ মিশিয়ে মিক্সার মেশিন অথবা ব্লেন্ডারে মিশিয়ে নিয়ে মুখে, গলায় হাতে মেখে নেবেন। ব্লেন্ডার না থাকলে হাতেই ভালো করে মিশিয়ে নেবেন

১০.টমেটো ফেস প্যাক:
শীতকালে আমাদের দেশে প্রচুর টমেটো পাওয়া যায়। সময় দামও কম থাকে। টমেটোতে প্রচুর ভিটামিনসি থাকে। তাই কাঁচা টমেটো খাওয়া খুবই উপকারী। টমেটোতে ভিটামিনবিও রয়েছে। ভিটামিনবি, ভিটামিনসি এগুলো ত্বকের জন্যে বেশ উপকারী। টমেটো খেয়ে এবং ফেসপ্যাক তৈরি করে আপনি রূপচর্চা করতে পারেন অনায়াসে।
ফেসপ্যাক তৈরির পদ্ধতি

মাঝারি ধরনের গোটা তিনেক টমেটোর রসের সঙ্গে চা চামচ গ্লিসারিন, চামচ লেবুর রস, চামচ অলিভ অয়েল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে মুখে, গলায় হাতে ভালো করে মেখে নিয়ে ১৫/২০ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন মুখটি কেমন সুন্দর মনে হচ্ছে

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.