|

ঢাকায় প্রদর্শিত হলো “ওয়াচমেকার”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তত্ত্বাবধানে ডঃ নাদির জুনাইদ এর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় কলা ভবনে অবস্থিত শেখ রাসেল কম্পিউটার ল্যাবে প্রদর্শিত হয়ে গেল ভারতীয় বাংলা ভাষার সিনেমা ‘ওয়াচমেকার’। কিন্তু মজার বিষয় হলো ‘ওয়াচমেকার’ সিনেমাটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম স্টাডিজ বিভাগের পাঠ্যবইয়ে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। যা অনেক বড় অর্জন বলেই মনে করছেন এই ফিল্মের সাথে সংশ্লিষ্ট সবাই।পরবর্তীতে এই সিনেমাটি  বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও ম্যুভিয়ানা সোসাইটি’ র উদ্যোগে ঢাকার সেগুনবাগিচায় অবস্থিত জাতীয় নাট্যশালা ভবনের কনফারেন্স রুমে প্রদর্শিত হয়।

অপরদিকে এই সিনেমাটির পুরো টিম আসে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে যেখানে দু’ দিনব্যাপী চলচ্চিত্র কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। সেইখানে প্রদর্শনীর পাশাপাশি সিনেমাটি নিয়ে বিশদভাবে বিশ্লেষণ করা হয় এবং কনফারেন্স রুমে একটি মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সিনেমাটি এখন পর্যন্ত  যে সব দর্শক দেখেছেন তাঁরা প্রত্যেকেই সিনেমাটিকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন। এমনকি বাংলাদেশের অনেক চলচ্চিত্র বোদ্ধারা মতামত দিয়েছেন যে, এই সিনেমাটি একটি নতুন জোরনার তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।এই ধরনের  কাজ নিয়মিত করা সম্ভব হলে ধীরে ধীরে একটা দর্শকশ্রেণী তৈরি হয়ে যাবে।

এবার আসা যাক এই সিনেমা’ র গল্পে। ইংরেজি শব্দ ‘ওয়াচমেকার’ নামটি শুনলেই যেন মনে হয় ঘড়ি তৈরি সম্পর্কিত বিষয় রয়েছে এই সিনেমাটিতে। কিন্তু আরও অনেক ধরনের উপাদান আছে যাকে পরিচালকের ভাষায় এন্টিলজিক হিসেবে অভিহিত করা যেতে পারে। পাশাপাশি সময়ের অতীত অর্থাৎ সময় যে পিছনের দিকে ছুটে চলছে এই বিষয়টিকেও খুব গুরুত্ব দেয়া হয়েছে এই সিনেমাটিতে। পরিচালক অনিন্দ্য ব্যানার্জি ১ ঘন্টা ৪৬ মিনিটের এই সিনেমাটি কে এমনভাবে গাঁথুনি দিয়ে তৈরি করেছেন যে, কয়েক সেকেন্ডের জন্য যদি কেউ মনযোগ অন্য দিকে দেয় তাহলে পরবর্তীতে এই সিনেমাটি বুঝতে ভারী কষ্ট হয়ে পরবে। তবে এই সিনেমাটিতে জার্মান এক্সপ্রেশনের গুরুত্ব দেয়া হয়েছে এবং সবচেয়ে মজার বিষয় হলো সিনেমাটি  নির্মাণ করা হয়েছে ব্লাক এন্ড হোয়াইট।

সিনেমাটি ইতিমধ্যেই ইতালির একটি উৎসবে অংশগ্রহণ করে বেস্ট এক্সপেরিমেন্টাল ফিল্মের পুরুষ্কার পেয়েছে। যা বাংলা সিনেমার জন্য অনেক গর্বের। এই সিনেমাটি প্রযোজনা করেছে রাজদীব সরকার যে কিনা এর আগে অন্তঃসার নামে একটা সিনেমা তৈরি করেন। আর অভিনয়ের পাশাপাশি সিনেমাটি পরিচালনা করেন অনিন্দ্য পুলক ব্যানার্জি।  এছাড়াও আরও অভিনয় করেন রিতাভরী চক্রবর্তী,  রিতাব্রত ভট্টাচার্য, জয়ী দেবরয়, ঐশিক  ব্যানার্জি।

 

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.