দুই শালিক: একক অ্যালবামে মুক্তি পেল অনির্বাণ, মধুপর্ণা ও দেবাশীষের ‘সঞ্চারী’


নিজস্ব প্রতিবেদন: মন খারাপের ওষুধ মানে গান। আবার খুশি মনে গান হৃদয়ে নতুন ছন্দে দোলা দেয়। তবে অবশ্যই সেই গানের সুর, কন্ঠ মর্মস্পর্শী হতে হয়। সেই রকমই একটি গান ‘সঞ্চারী’, যা সম্প্রতি প্রায়শই শোনা যাচ্ছে ইউটিউবে। গানটি তমাল সেন পরচালিত, অম্বরীশ মজুমদারের কাহিনী ‘দুই শালিক’ নামের একটি স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবিতে ব্যবহার হয়েছে। ছবিটিতে অনন্যা চট্টোপাধ্যায় ও রজতাভ দত্তের মত পথিতযশা শিল্পীরা অভিনয় করেছেন। দুজন মানুষ কীভাবে নিজেদের সীমাবদ্ধতাকে পেরিয়েও ভালোবাসার স্বপ্ন দেখতে পারে তাই নিয়েই ছবির গল্প। বৃহস্পতিবার ছবির ‘সঞ্চারী’ গানটি এবার একক ভাবে কথা সহ অ্যালবাম আকারে আত্মপ্রকাশ করেছে। 

‘দুই শালিক’ ছবির ‘সঞ্চারী’ গানটিকে অসম্ভব সুর-মাধুর্য্যে পরিপূর্ণতা দেওয়ার পেছনে যে সমস্ত মানুষেরা আছেন তাদের মধ্যে অবশ্যই উল্লেখ্যোগ্য তিনজন হলেন সুরকার অনির্বাণ অজয় দাস। যিনি একটি বিখ্যাত মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানির কর্তেমী হয়েও গান নিয়ে কাজ করছেন বহুদিন। ‘সঞ্চারী’ গানটি ছাড়াও দুটি সিঙ্গেলস সাঁইয়া ও এখনই এসো না এবং প্রদীপ্ত ভট্টাচার্য পরিচালত, হৃত্বিক চক্রবর্তী অভিনীত ল্যাদ ছবিটিতে সুরকার হিসাবে কাজ করেছেন। তাঁর নিষ্ঠার কারণে এই তিনটি গানই ইতিমধ্যে তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

আরও পড়ুন-তথ্য সম্প্রচার মন্ত্রকের নজরে OTT প্ল্যাটফর্ম, কী বলছেন বাংলার পরিচালকরা?

অন্যদিকে ‘সঞ্চারী’ গানটিতে কন্ঠশিল্পী হিসাবে কাজ করেছেন মধুপর্ণা গঙ্গোপাধ্যায় ও দেবাশীষ সোম। মধুপর্ণা ছোটবেলা থেকেই শাস্ত্রীয় সংগীতের তালিম নিয়েছেন। বর্তমানে হিন্দুস্থানী গজলের ওপর বিশেষ প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। এছাড়াও রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সঙ্গীতে মাস্টার্স করে নেট পরীক্ষায় সফলও হয়েছেন। পাশাপাশি তিনি অল ইন্ডিয়া রেডিওতে ২০১৬ থেকে সঙ্গীতশিল্পী হিসাবে নিয়মিত কাজ করছেন। ২০০৮ সালে সারেগামাপা (বিশ্বসেরা) মঞ্চে পঞ্চম স্থান লাভ করেন। ২০১৭ তে প্রথমে জি বাংলা অরিজিনালসে রাতুল শঙ্করের সুরে ‘রাতের অতিথি’ ছবিতে, তারপর থেকে এখনও অবধি দাওয়াত-এ-বিরিয়ানী, কড়াপাক, ৭১, ব্রোকেন লাইনস ছবিতে কন্ঠশিল্পী হিসাবে কাজ করেন। মধুপর্ণার একক অ্যালবামগুলির মধ্যে ‘সাঁইয়া’, ‘এখনই এসো না’, ‘মনবসিয়া’ যথেষ্ট জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। এখনই এসো না ইতিমধ্যেই প্রায় সাড়ে সাত মিলিয়নের ওপর মানুষ দেখে ফেলেছেন। এছাড়াও ‘সাঁঝের বাতি’ ধারাবাহিকে মূল গানটিতে গেয়েছেন তিনি। ‘প্রোজেক্ট স্ত্রীধন’- এর মত জাতীয় স্তরের বিজ্ঞাপনের জন্যেও দেবাশীষ সোমের সুরে তিনি একক কন্ঠশিল্পী হিসাবে কাজ করে সারা দেশে প্রশংসা পেয়েছেন।

দুই শালিক ছবির এই ‘সঞ্চারী’ গানটিতে দেবাশীষ সোম ও তার জুটি এক কথায় অনবদ্য মাধুর্য্যের সৃষ্টি করেছে। দেবাশীষের যদিও এই গানটিতেই প্রথম কন্ঠশিল্পী হিসাবে আত্মপ্রকাশ। এছাড়া তিনি সুরকার ও সুর সঞ্চালনার কাজও করে থাকেন।

আরও পড়ুন-স্মার্ট ফোনে আটকে পড়া ছোটদের দুনিয়াকে প্রেক্ষাপট করে আসছে ‘হাবজি গাবজি’

প্রসঙ্গত, গায়িকা মধুপর্ণা বর্তমানে বর্তমানে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মিউজিক থেরাপিতে পি.এইচ.ডি করছেন। তিনি জানিয়েছেন, মিউজিক থেরাপি নিয়ে পড়াশোনা সম্পূর্ণ করে তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত মানুষদের সঙ্গীতের মাধ্যমে সুস্থ করতে চান। 





Continue Reading

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.