|

প্লিজ বিয়ের বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করবেন না – শ্রাবন্তী

আর মাত্র এক দিনের অপেক্ষা। আগামী শুক্রবার প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে মুহাম্মদ মোস্তাফা কামাল রাজ পরিচালিত সিনেমা ‘যদি একদিন’। এই সিনেমায় বাংলাদেশের জনপ্রিয় গায়ক ও অভিনয়শিল্পী তাহসানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন ভারতের বাংলা ছবির নায়িকা শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ছবি মুক্তির আগে প্রচারণার জন্য বাংলাদেশে আসার কথা ছিল তাঁর। জানালেন, বাংলাদেশে আসার জন্য প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের উপদূতাবাস থেকে ভিসা পাননি। আজ বুধবার দুপুরে কলকাতার বাইপাস এলাকায় আরবানা এনআরআই কমপ্লেক্সের বাসা থেকে প্রথম আলোর সঙ্গে কথা বললেন তিনি। জানালেন, ৪০ তলা এই অ্যাপার্টমেন্টের ৩৭ তলায় থাকেন তিনি। নিজের ফ্ল্যাট থেকে কলকাতা শহরের সৌন্দর্য দারুণ উপভোগ করেন।

বাংলাদেশে আপনার অভিনীত ছবি ‘যদি একদিন’ মুক্তি পাচ্ছে। কেমন লাগছে?
আমি ভীষণ খুশি। আবার খুব খারাপ লাগছে, কারণ ছবি মুক্তির আগে এখনো সেখানে যেতে পারিনি। তবে ঢাকায় কী হচ্ছে, কলকাতায় বসে সবকিছু দেখছি। তাহসান, তাসকিন আর পরিচালক মুহাম্মদ মোস্তাফা কামাল রাজ—পুরো দল রাস্তায় নেমে ছবির প্রচারণা চালাচ্ছে। ‘যদি একদিন’ টিম ছবিটি দেখার জন্য সবার আগ্রহ তৈরির চেষ্টা করছে। এই সময় আমি সেখানে থাকতে পারছি না। তারপরও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ‘যদি একদিন’ নিয়ে কথা বলছি। কিন্তু মন মানছে না।

আপনি চেষ্টা তো করছেন?
ফেসবুক, টুইটার আর ইনস্টাগ্রামে প্রচার চালিয়ে যে মজা, সামনাসামনি আনন্দ অনেক বেশি। সাধারণ মানুষের অভিব্যক্তি ও উচ্ছ্বাস সামনাসামনি দেখতে বেশি ভালো লাগে। ঢাকায় যাওয়ার জন্য এই সময়টাতে ছবির কোনো কাজ রাখিনি। শুটিং করছি না। জানি না, বাংলাদেশ কেন ভিসা দিচ্ছে না!

ভিসা না পাওয়ার কারণ কী?
আমি নিজেও জানি না। কোনো সমস্যা হয়তো আছে। শুনেছি সার্ভার ডাউন। আমি কিন্তু অনেকবার বাংলাদেশে গেছি। এবার ভিসা নিয়ে যা হচ্ছে, তা আমাকে অবাক করেছে। জানি না, শেষ পর্যন্ত ভিসা পাব কি না।

তাহসান বলেছেন, আপনি নাকি শুটিংয়ের সময় খাবারের সঙ্গে প্রচুর মরিচ খেয়েছেন?
আমি ঝাল খেতে ভীষণ ভালোবাসি। আমার কাছে কোনো খাবারের স্বাদ লাগে না, যদি প্রচুর ঝাল না থাকে। খাওয়ার জন্য আমি আলাদা করে সবুজ মরিচ বাসায় এনে রাখি। শুটিংয়ের সময় আমার অবস্থা দেখে তাহসান বলেছে, ও মেক্সিকোতে গেলে আমার জন্য ঝাল মরিচ নিয়ে আসবে।

মেক্সিকোর মরিচ পেয়েছেন?

শুটিংয়ের পর আর বাংলাদেশে যাইনি। জুন মাসে শুটিং শেষ করেছি। এরপর কারও সঙ্গে দেখা হয়নি। পরিচালক রাজ কলকাতায় এসেছিল ডাবিং করতে। তখন ওর সঙ্গে কথা হয়েছে। এবার সিনেমা মুক্তির সময় যাওয়ার ভীষণ ইচ্ছে ছিল।

অন্য কাজের খবর বলুন।
কলকাতায় আমার কয়েকটা সিনেমা মুক্তি পাচ্ছে। ২৯ মার্চ ‘গুগলি’ ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে। এই ছবিতে আমার সহশিল্পী সোহম। ছবিতে আমি আর সোহম দুজনই তোতলা। অন্য রকম একটা সিনেমা। এর বাইরে ‘হুল্লোড়’, ‘ভূতচক্র প্রাইভেট লিমিটেড’সহ কয়েকটি সিনেমা মুক্তির কথা শুনছি। আমি এখন ছবির কাজ নিয়ে পুরোপুরি ব্যস্ত।

ব্যক্তিজীবন নিয়ে কী ভাবছেন?
বিয়ে আর ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে প্রশ্ন করবেন না। তাহসানের সঙ্গে প্রথম কাজ। কেমন অভিজ্ঞতা হলো? তাহসানকে অসাধারণ লেগেছে। ভীষণ ভালো অভিনেতা আর তাহসান একজন ভালো মানুষ। তাঁর ব্যবহার, কথাবার্তা সবই আমাকে মুগ্ধ করেছে। আমরা প্রথম কাজ করেছি, কিন্তু কোনো সমস্যা হয়নি। সুন্দরভাবে অভিনয় করেছি। ছবির কাজের ফাঁকে চমৎকার আড্ডা হয়েছে। গল্প করেছি। আমি অবশ্য যেখানে কাজ করি, ওটা আমার পরিবারের মতোই হয়ে যায়। এই ছবির ইউনিটও তেমন ছিল। সবার সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করা, খাবার খাওয়া, আড্ডাবাজি—সব মিলিয়ে দারুণ অভিজ্ঞতা। আমি বলব, তাহসান ওয়ান্ডারাফুল অ্যাক্টর।

শিকারি’ ছবিতে শাকিব খান আর ‘যদি একদিন’ ছবিতে তাহসানের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। ভবিষ্যতে কোনো ছবির জন্য যদি শাকিব খান বা তাহসানের মধ্য থেকে একজনকে বেছে নিতে বলা হয়, কাকে নেবেন?
আমি বাছাই করার কেউ না। যে কারও সঙ্গে কাজ করতে কোনো সমস্যা হবে না। আমি শুধু দেখব গল্প। আমার বিপরীতে কাকে মানাবে, তা পরিচালকই ভালো বলবেন। আমি নিজের কাজটা করব।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.