বলিউডে চলছে সাউথ ইন্ডিয়ান মুভি রিমেকের রমরমা ব্যবসায়

মসলাদার ছবি তৈরিতে সাউথ ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রির জুড়ি মেলা ভার। নাচ-গান এবং ধুন্ধুমার এ্যাকশনের  সাথে সুন্দর কাহিনী নির্ভর ছবি হওয়ায় সাউথ ইন্ডিয়ান ছবি সারা বিশ্বে জনপ্রিয়।

বলিউডে অনেক আগে থেকেই চলছে সাউথ ইন্ডিয়ান ছবি রিমেকের রমরমা ব্যবসায়। সাউথ ইন্ডিয়ান ছবি রিমেক করলেই ব্যপক ব্যবসায় সফল হচ্ছে বলিউডে। খিলাড়ী খ্যাত অক্ষয় কুমার থেকে শুরু করে সালমান,আমির এবং হালের ক্রেজ টাইগার শ্রুফ ও দক্ষিণের ছবির রিমেক করেছেন।

আমির খান ২০০৮ সালে তামিল “গাজনী” ছবির অফিশিয়াল রিমেক করেন যা প্রথম হিন্দি ছবি হিসেবে ১০০ কোটির ওপরে আয় করে।

এছাড়াও অক্ষয় কুমার ২০১২ সালে তেলেগু “বিক্রমারকুডু” ছবির রিমেক করেন। যার হিন্দি নাম ছিল “রাওডি রাঠোর”। ছবিটি ব্যবসায়ীক সাফল্য পায়।

সালমান খান ২০১৪ সালে “কিক” ছবিটি নিয়ে বলিউডে হাজির হয়। ছবিটি ব্যপক ব্যবসায় করে।

মরাঠি ছবি “সাইরাতের” রিমেক হয়েছে যা “ধাড়াক” নামে মুক্তি পেয়েছে ২০শে জুলাই।ছবিটতে অভিনয় করেছেন শ্রীদেবী মেয়ে জাহ্নবী কাপুর এবং শহীদ কাপুরের ভাই ইশান খাট্টর। এখন দেখা যাক ছবিটি কেমন ব্যবসায় করে।

তাছাড়া সালমান খানের “ওয়ান্টেড”,বারুন ধাওয়ানের “ম্যা তেরা হিরো”,টাইগার শ্রুফের “বাঘী ২” ছবিগুলো তামিল-তেলেগু ছবির অফিশিয়াল  রিমেক। এ ছবি গুলো ছাড়া ও আরো অনেক ছবি হিন্দি রিমেক হয়েছে যেগুলো ব্যবসায়ীক ভাবে সফল এবং দর্শক-সমালোচকদের কাছেও প্রশংসিত।

 

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.