বিহারে কিশোরীকে জীবন্ত পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ, প্রতিবাদে ফুঁসে উঠলেন কঙ্গনা


নিজস্ব প্রতিবেদন : ​ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় বিহারে জ্বলন্ত পুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয় এক কিশোরীকে। কেরোসিন ঢেলে ওই কিশোরীকে পুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ। শরীরে ৭৫ শতাংশ পোড়া ক্ষত নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ওই কিশোরীকে। গত ৩০ অক্টোবর ওই কিশোরীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও, ১৭ নভেম্বর তার মৃত্যু হয়। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই বিহারের বিভিন্ন অংশে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। বিহারের ওই ঘটনার জেরে এবার মুখ খুললেন কঙ্গনা রানাউত।

আরও পড়ুন : ৪ মাস ধরে আলিয়ার লেহঙ্গা তৈরি করেছে ৩৫ জন স্কুল পড়ুয়া, দেখুন

নিজের সোশ্যাল হ্যান্ডেলে প্রতিবাদে ফুঁসে ওঠেন কঙ্গনা। তিনি বলেন, দেশের মেয়েরা একেবারেই সুরক্ষিত নেই। ধর্ম নিরপেক্ষ হয়েই দেশের প্রত্যেকটি এই ধরনের ঘটনার প্রতিবাদ করতে হবে। গুলনাজ খাতুন বলে যে কিশোরীর গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে, ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে তার প্রতিবাদ করতে হবে বলেও আহ্বান জানান বলিউড অভিনেত্রী। এই কাজে দেশের প্রত্যেকটি মানুষকে একযোগে এগিয়ে আসতে হবেও বলেও জানান কঙ্গনা।

দেখুন…

 

গত ৩০ অক্টোবর বিহারের রসুলপুরের হাবিব গ্রামে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করেন গুলনাজ খাতুন। এরপর চন্দন রাই নামে এক যুবক গুলনাজের গায়ে কেরোসিরন তেল ঢেলে তাকে পুড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। চন্দন রাইয়ের সঙ্গে সতীশ রাই এবং বিনয় রাই নামে আরও দুজন একযোগে ওই কাজে সামিল হয় বলে অভিযোগ। ওই ঘটনার পর থেকেই জোর শোরগোল শুরু হয়ে যায়। ‘গুলনাজ কো ন্যায় দো’ বলে প্রতিবাদে সরব হন বিহারের মানুষের একাংশ। সামাজিক মাধ্যমেও শুরু হয় জোর প্রতিবাদ। এবার সেই প্রতিবাদে সামিল হলেন কঙ্গনা রানাউত।





Continue Reading

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.