রাজনীতির কারণে বন্ধুত্ব নষ্ট হবে না


ভাস্বতী ঘোষ
অন্য সময়: টলিউডের অবস্থা ভালো না খারাপ?

যশ: বাংলা ছবির অবস্থা ভালো নয়, আমরা সকলে জানি সেটা। টলিউডের মধ্যে অভন্তরীণ রাজনীতি কাজ করছে। সেটা সমস্যার। রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার পরও আমার বক্তব্য, টলিউডে রাজনীতির কারণে বিভেদে বিশ্বাস করি না। এতে বাংলা ইন্ডাস্ট্রির অনেকটা ক্ষতি হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যেই।

অন্য সময়: তা হলে টলিউডে দলবাজি চলে, সেটা অনুভব করেছেন?

যশ: আমাকে এর মুখোমুখি হতে হয়নি। কিন্তু বহু ঘটনা দেখেছি আমি। আসলে এখানে রাজনীতির বাইরেও একজনের সঙ্গে অন্যজনের সদ্ভাবের খুব অভাব বরাবর। করোনার পর অবস্থা এতটা খারাপ যে, আমরা সেটা সংশোধন করার চেষ্টা করছি। কিন্তু নিজেদের মধ্যে ঝগড়াগুলো অনেক আগে মেটালে পরিস্থিতি এতটা খারাপ হতো না টলিউডে।

অন্য সময়: আপনার ব্যক্তিগত জীবন ভয়ঙ্কর চর্চায়। বান্ধবী পুনম ঝা-র সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হয়েছে বলে চর্চা। নুসরত জাহানের সঙ্গে প্রেম চলছে বলে চর্চা। কী বলবেন?

যশ: পুনমের সঙ্গে আমার সম্পর্ক খারাপ হয়নি। নুসরতের সঙ্গেও আমার বিশেষ বন্ধুত্ব রয়েছে, সম্পর্ক খারাপ হয়নি। রাজনীতির কথা যদি বলেন, আমি আমার দলকে সমর্থন করছি। নুসরতের ক্ষেত্রেও উত্তরটা মনে হয় সেটাই হবে। এর কোনও প্রভাব আমাদের বন্ধুত্বে পড়েনি।

অন্য সময়: নুসরতের সঙ্গে প্রেম কতটা সে প্রশ্নের উত্তর কি দেবেন?

যশ: শুধু এই সম্পর্কটা কেন, পরিবারের ব্যাপারেও আমি মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলি না কোনওদিন। এ বারও সেটা বদলাতে চাই না।

অন্য সময়: রাজনীতিতে আসার পরের ধাপ হল, কাজ সাজানো। কীভাবে এগোবেন?

যশ: সেটার ওপর কাজ চলছে। তবে আমি পার্টটাইম রাজনীতি করতে আসিনি। সময় দিতে চাই। একদম শিকড়ে পৌঁছে মানুষের জন্য কাজ করতে চাই। চারপাশে যে সব উদাহরণ চোখে পড়ে, তার চেয়ে অন্যরকম উদাহরণ তৈরি করতে চাই। আমাকে বিজেপি থেকে বলা হয়েছে, একটা পদ দিয়ে, তারপর হাত বেঁধে রাখা হবে না। আমি যে কাজগুলো করতে চাই, করতে দেওয়া হবে। সে কারণেই এই দলে এলাম। যদিও মুখ্যমন্ত্রীকে আমি শ্রদ্ধা করি।

অন্য সময়: এ ব্যাপারে নুসরত জাহান-মিমি চক্রবর্তীর সঙ্গে আলোচনা হল?

যশ: দেব শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেছে, ‘খুব খুশি। ওয়েলকাম টু পলিটিক্স’। মিমিও মেসেজ করেছে। রাজনীতির আদর্শ আলাদা হতে পারে। কিন্তু বাংলা ছবি করতে এসেই আমাদের বন্ধুত্ব শুরু। সেটা রাজনীতির কারণে নষ্ট হবে না। একটা কথা মাথায় রাখি। খালি পেটে রাজনীতি করতে এলে লক্ষ্য সঠিক হয় না। দেব-মিমি-নুসরত বা আমি সকলেই কিন্তু নিজের পেশায় প্রতিষ্ঠিত। তারপর মানুষের জন্য কাজ করতে চাইছি। কাটমানির ওপর আমাদের লোভ নেই, এটা নিশ্চিত। আর সমালোচনাকে কোনওদিনই ভয় পাই না। কারণ অভিনয়ের জন্য আমাদের যেমন অনুরাগী আছেন, তেমন নিন্দুকের সংখ্যা কম নয়।

অন্য সময়: প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতা, যিনি আপনাকে টলিউডে পরিচিতি দিয়েছেন, তার সঙ্গে কথা হল?

যশ: এখনও কথা হয়নি। তবে এটা জানি উনি সুস্থ আছেন। ঠিক সময়ে কথা হবে। সম্পর্কটা আগের মতো হয়ে যাবে।

অন্য সময়: কুলগাছিতে নুসরত জাহান আর আপনি একসঙ্গে স্টেজ শো করেছেন। কীরকম লাগল?

যশ: বহুদিন পর একটা স্টেজ শো করলাম। ভীষণ ভালো লাগল। মানুষের মধ্যে ভয় কমছে। অনেকে নাচছিল। মনে হচ্ছিল সব কিছু আগের মতো হয়ে যাচ্ছে।

অন্য সময়: শেষ প্রশ্ন। রাজনীতিতে যদি সফল হন, বাংলা ছবির জন্য কী চাইবেন?

যশ: টলিউডে যেন রাজনীতির কোনও রং না লাগে। কোনও রাজনৈতিক দলের কিছু মানুষের অনুমতি নিতে কোনও কাজ করতে হবে, এরকম যেন না হয়। সকলে যেন মন খুলে কাজ করতে পারেন এখানে, সেটা সবচেয়ে আগে চাইব।



Continue Reading

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.