২০১৮-তেই অনুরাগ কাশ্যপের বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন পায়েল! শেয়ার করলেন মুছে দেওয়া টুইট


 নিজস্ব প্রতিবেদন : অভিনেত্রী পায়েল ঘোষের আনা যৌন হেনস্থায় অভিযোগে বুধবারই পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপকে ডেকে পাঠিয়েছে ভারসোভা থানার পুলিস। বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টা নাগাদ পরিচালককে থানায় উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। এদিকে এরই মাঝে ২০১৮ সালে অনুরাগ প্রসঙ্গে করা তাঁর মুছে দেওয়া কিছু টুইটের স্ক্রিনশট শেয়ার করলেন পায়েল। 

২০১৮-র করা পুরনো টুইটে পায়েল ঘোষ লিখেছিলেন, খ্যাতনামা পরিচালক তাঁকে বলেছেন, শারীরিকভাবে বন্ধুত্বপূর্ণ হওয়াটাই কাজ পাওয়ার মাপকাঠি। পুরনো টুইট শেয়ার করে পায়েল লিখেছেন, ”মিটু আন্দোলনের সময় আমার পুরনো কিছু টুইট, যেগুলি আমার ম্যানেজার ও পরিবার মুছে ফেলেছিল। আমি বলতে চাই মিটু ইন্ডিয়ার নতুন নামকরণ করতে চাই। কারণ, মিটু আন্দোলনটিও নকল ও প্রভাবশালী লোকদের নিয়ন্ত্রণে।”

মিটু আন্দোলনের সময় তাঁর টুইটগুলি যে তাঁর ম্যানেজার ও পরিবারের তরফে মুছে ফেলা হয়েছিল, সেটা নিশ্চিত করতে পায়েল তাঁর ম্যানেজারের করা পুরনো মেসেজও শেয়ার করেছেন। যেগুলি শেয়ার করে পায়েল লিখেছেন, ”বলিউডের কিছু লোকজনকে ভয়ে পয়ে আমার পরিবারকে ম্যানেজার এই মেসেজ পাঠিয়েছিলেন”। পায়েল যে মেসেজ শেয়ার করেছেন, তাতে লেখা, ”ও যা লিখেছিল, ওগুলো সব আমি ডিলিট করে দিয়েছি। ডিলিট করে এটা লিখেছি, তবে এটাও ডিলিট করে দিচ্ছি”। প্রথমে পায়েলের টুইটগুলি ডিলিট করে লেখা হয়েছিল, ”টুইটারকে বিদায় জানাচ্ছি, মিটু আন্দোলন ক্রমাগত ভয়ঙ্ক হয়ে উঠছে। ঘৃণা ভুলে এবার ভালোবাসা ছড়ানো যাক”। যদিও পরে এই টুইটটিও ডিলিট করে দেওয়া হয়। সেই টুইট সংক্রান্ত তাঁর ম্যানেজারের মেসেজই শেয়ার করেছেন পায়েল।

বলিউডের মডেল অভিনেত্রী পায়েল ঘোষ অভিযোগ করেন, ২০১৫-১৬ সাল নাগাদ অনুরাগ কাশ্যপের কাছে অডিশন দিতে গিয়েছিলেন তিনি। ওই সময় অনুরাগ তাঁকে ঘরের মধ্যে ডেকে নিয়ে গিয়ে অশ্লীল ইঙ্গিত করেন প্রথমে। এরপর ঘরের দরজা বন্ধ করে নীল ছবি চালিয়ে পায়েলকে শয্যা সঙ্গিনী করার চেষ্টা করেন তিনি। পায়েল রাজি না হলে, তিনি রিচা চাড্ডা, হুমা কুরেশিদের উদাহরণ টেনে আনেন। সেই সঙ্গে বলেন, হুমা, রিচাদের যখন ডাকেন তখই নাকি তাঁরা অনুরাগের কাছে হাজির হন। অনুরাগের বিরুদ্ধে এমনও অভিযোগ করেন পায়েল।

পাশাপাশি ওই সময় অনুরাগ বম্বে ভেলভেটের শ্যুটিং করছিলেন। ফলে রণবীর কাপুরের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করার জন্য যে কোনও মেয়ে তাঁর সঙ্গে শয্যা সঙ্গিনী হতে রাজি হয়ে যান বলেও নাকি ওই সময় পায়েলকে জানিয়েছিলেন অনুরাগ।

যদিও পায়েল ঘোষের ওই অভিযোগের পর মুখ খোলেন অনুরাগের প্রথম এবং দ্বিতীয় স্ত্রী সহ বিটাউনের অনেকেই দুজনেই। তাঁদের কথায় অনুরাগ সব সময় নারী স্বাধীনতার জন্য লড়াই করেন। এদিকে পায়েল তাঁর এই অভিযোগের পর কঙ্গনা রানাউত, শার্লিন চোপড়া সহ আরও অনেককে পাশে পেয়েছেন।





Continue Reading

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.