৭৪তম জন্মবার্ষিকী: নতুন রূপে বিনোদ খান্না, কিছু অজানা তথ্য জানুন এখানে…


এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: হিরো-সুলভ সব গুণই তাঁর মধ্যে যথেষ্ট ছিল। ড্যাশিং লুক, চার্মিং অবতার আর ক্যারিশমেটিক ব্যক্তিত্ব। সিনেমায় বিনোদ খান্নার উপস্থিতি থাকলেই হলে হাততালি আর সিটিতে ভরিয়ে তুলতেন দর্শকরা। ৮০-র দশকে রুপালি পর্দায় তিনি ছিলেন বলিউডের হার্টথ্রব।

বলিউডে তাঁর দীর্ঘ কর্মজীবনে ১০০-র বেশি ছবিতে অভিনয় করেছেন তিনি। জীবনের দ্বিতীয় ভাগে যোগ দেন রাজনীতিতে। পঞ্জাবের গুরুদাসপুর থেকে তিনি সাংসদ হিসেবে নির্বাচিত হন। দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারে ভুগছিলেন তিনি। শেষে কর্কটরোগের কাছে হার মেনে নেন তিনি। ২০১৭ সালে ২৭ এপ্রিল তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর মৃত্যুত্যে গভীর শোকাহত তিন পুত্র রাহুল, অক্ষয় এবং সাক্ষী, কন্যা শ্রদ্ধা এবং স্ত্রী কবিতা। তাঁর প্রথম স্ত্রী ছিলেন গীতাঞ্জলী, কিন্তু ১৯৮৫ সালে তাঁদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়।

বিনোদ খান্না – এক অঙ্গে অনেক রূপ

আজ তাঁর ৭৪তম জন্মবার্ষিকী। বলিউডের বিশিষ্ট অভিনেতার সম্বন্ধে কিছু অজানা তথ্য রইল আপনাদের জন্য…

১. মেধাবী ছাত্র ছিলেন তিনি…

বলিউডে পা রাখারা আগে তিনি তাঁর পড়াশোনা শেষ করেন। ক্য়ামেরার সামনে অভিনয় ছিল তাঁর প্যাশন। বাণিজ্যে স্নাতক ছিলেন তিনি। মুম্বইয়ের সিডেনহাম করলেজ তিনি কমার্স নিয়ে গ্র্যাজুয়েট হন। মেধাবী ছাত্র হিসেবেই তিনি পরিচিত ছিলেন।

২. বলিউডে ভিলেনের চরিত্র দিয়ে ডেবিউ তাঁর…

বলিউডের অন্যতম সুপুরুষ ছিলেন বিনোদ খান্না। তবে তিনি বলিউডে পা রাখেন ভিলেনের চরিত্রে অভিনয় করে। ৭০ এবং ৮০-র দশকে সিলভার স্ক্রিনে ঝড় তোলেন বিনোদ খন্না। ১৯৬৮ সালে বড় পর্দায় তাঁর আত্মপ্রকাশ মন কি বাত ছবি দিয়ে। পরিচালক ছিলেন সুনীল দত্ত। ভিলেনরূপী নায়ককে বেশ পছন্দ হয় দর্শকের। এরপর মেরা গাঁও মেরা দেশ(১৯৭১) সিনেমায় ডাকাতের ভূমিকায় অভিনয় করেন তিনি। সেখান বেশ সাফল্য পান তিনি। কেরিয়ারের শেষের দিকে অমর আকবর অ্য়ান্থনি, মুকাদর কা সিকাদর ও বার্নিং ট্রেনে ও তাঁর আশাকছোঁয়া সাফল্য আসে।

প্রয়াত অভিনেতা-সাংসদ বিনোদ খন্না

৪. কুরবানি থেকে রকি

১৯৮০ সালে কুরবানি সিনেমায় অভিনয় করার পর তাঁকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। তবে প্রথমে অমিতাভ বচ্চনের কাছে কুরবানির স্ক্রিপ্ট নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু তিনি নাকচ করে দিলে বিনোদ খান্নার হাতে আসে একটা বিরাট সুযোগ। আর সুযোগকেই কাজে লাগান তিনি। কিন্তু বলিউডে বেশ কয়েকটি হিট সিনেমায় অভিনয়ে না করে দিয়েছিলেন বিনোদজী। যেমন সুনীল দত্তরে রকি সিনেমাটি ফিরিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

৪. নিজের সিনেমায় নিজেই টাকা দিয়েছিলেন…

অরুণারাজে পাটিল পরিচালিত সিনেমা যখন একেবারে মুখ থুবরে পড়েথিল, সেই সময় ত্রাতা হিসেবে ভূমিকা পালন করেছিলেন তিনি। মুম্বই মিররের রিপোর্ট অনুযায়ী, বিনোদ খান্নার স্ত্রী কবিতা ও পরিচালক অরুণারাজে সম্প্রতি মুখ খুলেছেন সেই বিষয়ে। কীভাবে তিনি সিনেমার জন্য অর্থ ব্যয় করেছিলেন রিহায়ে সিনেমার জন্য। যে হিট সিনেমায় বিনোদ খান্না নিজেই ছিলেন মুখ্যভূমিকায়।

এই সময় ডিজিটালের বিনোদন সংক্রান্ত সব আপডেট এখন টেলিগ্রামে। সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন এখানে



Continue Reading

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.