|

প্রকাশ পেল “আহত ফুলের গল্প” সিনেমার ট্রেইলার

“আহত ফুলের গল্প” সিনেমাটির প্রথম টিজার যখন প্রকাশ পেয়েছিল তখন থেকেই  দর্শকদের  অসম্ভব ভালো লেগেছিলো । সিনেমাটিকে  নিয়ে  সাধারণ  মানুষের  মধ্যে  তুমুল আলোচনা ও আগ্রহের সৃষ্টি হয়েছে যা সামাজিক যোগাযোগ  মাধ্যম থেকে ধারণা  পাওয়া গেছে । এরপর  চলতি  মাসে বিনা  কর্তনে সিনেমাটি সেন্সর ছাড়পত্র পায় এবং সম্মানিত সদস্য বৃন্দের তরফ থেকে ভালোলাগা ও প্রশংসা বাক্য পায়। তাইতো সিনেমা প্রেমীদের আগ্রহকে  আরও  কয়েক গুণ  বাড়িয়ে  দিয়ে  মুক্তি  পেল “আহত ফুলের গল্প” সিনেমার ট্রেইলার।

পিতৃতান্ত্রিক বাংলাদেশের মুসলিম সমাজব্যবস্থা, তথ্যপ্রযুক্তি ও সংস্কৃতির সংস্পর্শে শাপলা, কামিনী এবং মোহনা নামের তিনজন মেয়ের জীবনকে কিভাবে প্রভাবিত করেছে তাই  নিয়ে নির্মিত হয়েছে  চলচ্চিত্র “আহত ফুলের গল্প”। এই সিনেমাটির গল্প মূলত এগিয়েছে শাপলা- সবুজের অপরিণত প্রেম কাহিনীর উপর নির্ভর করে । এ চলচ্চিত্রে  তেমন ফ্যান্টাসি নেই , আছে  চারপাশে দেখা  ঘটনার বিশ্লেষণের  মধ্য দিয়ে  প্রচলিত  জীবনের গভীর সংকটকে উপলব্ধির চেষ্টা। সিরিয়াস বিষয় গুলোর বিষয়বস্তুর হলেও দৈনন্দিন জীবনের বয়ে চলা হাসি-ঠাট্টা, গান-গীত এবং একটি প্রেম কাহিনীর মধ্য দিয়ে গল্পের মূল সুরটি প্রবাহিত।

সিনেমাটি সম্পর্কে তাঁর ত্যাগ, পরিশ্রমের কথা বলতে গিয়ে এক পর্যায়ে এই পরিচালক বলেন যে,  আমার সৃজন আমার সন্তানের মতো। আমার সিনেমায় কাহিনী  সংলাপের  প্রত্যেকটি শব্দ, বর্ণ লেখা থেকে শুরু করে প্রত্যেকটি পর্বের সরাসরি আমার আত্মার স্পর্শ জড়িয়ে আছে। এরপর শুটিং শেষে চূড়ান্ত পোস্ট প্রোডাকশনে যখন ডেলিভারির সময় এসে পড়লো তখন আমার মনে হলো এখন প্রতিটি মুহূর্ত আমার তার পাশে থাকা উচিত – যাতে নার্সিংয়ে কোন ঘাটতি না হয়। কারণ সন্তানের একটি সুস্থ্য সবল শরীর একটি  স্পর্শময় অন্তর তৈরিতে আমার তরফ থেকে সামান্যতম আত্ন হলে আমি নিজেকে ক্ষমা করতে পারবো না। তাই অনেক অর্থ কষ্ট থাকার পরও কোন কিছু চিন্তা না করেই শুধুই সিনেমার দিকে তাকিয়ে, তার মঙ্গলের কথা ভেবে প্রত্যেকটি মুহূর্তে তার পাশে থেকেছি। সন্তানের একটি সুন্দর মায়াময় মুখ দেখার প্রত্যাশা প্রত্যেক অবিভাবকেরই থাকে । তাই তার মঙ্গলের প্রত্যাশায়, আমি অনেক কিছু স্যাক্রিফাইস  করেছি। অনেক যন্ত্রণা হাসিমুখে মেনে নিয়েছি এবং এখনো নিচ্ছি ।

সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন  ওশান মাইন্ড এন্টারটেইনমেন্ট। এই ছবিতে চারটি পূর্ণাঙ্গ গান  এবং একটি উত্তরবঙ্গের গীত আছে ; যা সিনেমাটিতে ভিন্নমাত্রা যোগ করবে নিঃসন্দেহে বলা যায়। চারটি গানের মধ্যে একটি রবীন্দ্র সংগীত আছে যাতে কন্ঠ দিয়েছেন রোকন ইমন । আর বিয়ের গীতটিতে কন্ঠ দিয়েছেন উত্তরবঙ্গের এক ঝাঁক আঞ্চলিক শিল্পীরা । পক্ষান্তরে অন্য তিনটি গান লিখেছেন টোকন ঠাকুর,  কামরুজ্জামান কামু ও সোলায়মান আকন্দ এবং কন্ঠ  দিয়েছেন যথাক্রমে পিন্টু ঘোষ, কামরুজ্জামান রাব্বি ও লিপু অসীম । এই সিনেমাটির গল্প, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন তরুণ মেধাবী নির্মাতা অন্ত আজাদ । প্রায় দুই বছর ধরে তিনি এই সিনেমাটির কাজ করছেন বলে জানা গেছে । চলচ্চিত্রটিতে  অভিনয় করেছেন কামরুল হাসান, ওমরচাঁদ, তাহিয়া খান, সুজন মাহবুব, আলী আহসান, গাজী রাকায়েত,  অনন্যা হক, শেলী আহসান, জয়া, অভি চৌধুরী, শান্ত কুন্ডু, তৌহিদুল আলম,  সজীব, রিফতে, পেয়ারা বেগম, শহীদুল ইসলাম সহ আরও অনেকে।  উল্লেখ্য সিনেমাটি কবে মুক্তি পাবে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যায় নি।

You might also like

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.