উচ্চ তাপমাত্রা ও আর্দ্রতার সঙ্গে লড়াই করে কেনিয়ার জেপচিরচিরের স্বর্ণ জয়

0 6



কেনিয়ার পেরেস জেপচিরচির শনিবার উচ্চ তাপ ও আর্দ্রতার সঙ্গে লড়াই করে মহিলাদের ম্যারাথনে অলিম্পিক স্বর্ণপদক জয় করেছেন।তিনি সময় নিয়েছেন ২ ঘণ্টা ২৭ মিনিট ২০ সেকেন্ডে।

জেপচিরচিরের সতীর্থ কেনিয়ার ব্রিজিড কসগেই ২ ঘন্টা ২৭ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডে সময় নিয়ে রৌপ্য অর্জন করেন।যুক্তরাষ্ট্রের মলি সিডেল ২ ঘন্টা ২৭ মিনিট ৪৬ সেকেন্ড সময় নিয়ে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছেন।

অলিম্পিক আয়োজকরা প্রচণ্ড তাপ এবং আর্দ্রতা এড়ানোর জন্য নির্ধারিত সময়ের এক ঘণ্টা আগে, স্থানীয় সময় সকাল ৬ টায় মহিলাদের ম্যারাথন শুরু করেন।

প্রতিযোগিতার শুরুতে আকাশ ছিল পরিষ্কার এবং তাপমাত্রা ছিল ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।আপেক্ষিক আর্দ্রতা ছিল প্রায় ৮২%। এই প্রতিযোগিতার শেষে, তাপমাত্রা বেড়ে গিয়ে প্রায় ৩০ ডিগ্রী সেলসিয়াস হয়েছিল।

টোকিও থেকে প্রায় ১,১০০ কিলোমিটার উত্তরে উপকূলীয় শহর সোপোরোতে অনুষ্ঠিত এই ম্যারাথনে ৮৮ জন ক্রীড়াবিদদের মধ্যে ১৫ জন প্রতিযোগিতা শেষ করেননি।

বিশ্ব রেকর্ডধারী কসগেই এবং বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন কেনিয়ার রুথ চেপেনজেটিখও দর্শকদের সমর্থন পছন্দের তালিকায় ছিলেন স্বর্ণ জয়ের জন্য।কিন্তু চেপেনজেটিখ ইভেন্টটি শেষ করতে ব্যর্থ হন।

জেপচিরচির প্রতিযোগিতার শেষে, ৪০ কিলোমিটার দৌড়ের পর কসগেইকে পেছনে ফেলে এগিয়ে যান।

জেপচিরচির বলেন, ” নিজেকে যখন ঐ স্থানে পেলাম তখন মনে হলো আমি পারবো।তাই আমি গতি বাড়িয়ে দিলাম কারণ আমি জানতাম যে আমি জিতে যাবো।আমি খুব খুশি, কারণ আমরা কেনিয়ার দুজন প্রথম এবং দ্বিতীয় স্থান জিতেছি। আমি খুশি, আমার পরিবারের জন্য, আমার দেশ কেনিয়ার জন্য, খুশি আমাদের সমর্থন করার জন্য।”

শনিবার বিকেলে, যুক্তরাষ্ট্রের পুরুষদের বাস্কেটবল দল ফ্রান্সকে ৮৭-৮২ পয়েন্টে পরাজিত করে তাদের পর পর চতুর্থ অলিম্পিক স্বর্ণপদক এবং সর্বমোট ১৬তম স্বর্ণপদক জয় করে।

আমেরিকার কেভিন ডুরান্ট, যিনি এনবিএ -তে ব্রুকলিন নেটসের হয়ে খেলেন, তিনি ২৯ পয়েন্ট নিয়ে খেলার সর্বোচ্চ স্কোর করেন। ফ্রান্স যুক্তরাষ্ট্রকে অলিম্পিকের প্রথম রাউন্ডে পরাজিত করেছিল।

শুক্রবারের শেষ ইভেন্টে, কানাডার মহিলা ফুটবল দল ১-১ গোলে ড্র করার পর পেনাল্টি কিকে ৩-২ গোলে সুইডেনকে পরাজিত করে।দলের এই বিজয় কানাডাকে নারী ফুটবলে প্রথম স্বর্ণপদক এনে দিয়েছে।



Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.