খেলতে গিয়ে ঘুষি, দেয়ালে আঘাত পেয়ে শিশু রবিউলের মৃত্যু : পুলিশ

0 3


সাভারের আশুলিয়ায় নিখোঁজের তিন দিন পর গত রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) শিশু রবিউল ইসলামের অর্ধগলিত মরদেহ প্রতিবেশীর বাসার সিড়ির নিচ থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে আনা হয় হত্যার অভিযোগ। তবে পুলিশি তদন্তে বেরিয়ে আসে শিশু রবিউলের মৃত্যুর রহস্য। খেলতে গিয়ে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে রবিউল মারা যায় বলে কিশোর আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছে নিহতের বন্ধু আল আমিন।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আল মামুন কবির এসব তথ্য জানান। এর আগে বিকেলে ঢাকা মুখ্য বিচারিক আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ফারহানা ইয়াসমিন কিশোর আল আমিনের জবানবন্দি গ্রহণ শেষে তাকে টঙ্গীর কিশোর শোধনাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এসআই আল মামুন কবির বলেন, আশুলিয়ার দুর্গাপুরে ভাড়া বাসা থেকে প্রতিবেশী বন্ধু আল আমিনের বাসায় খেলতে যায় রবিউল। কিন্তু ওই সময় সবাই কাজে যাওয়ায় বাসা খালি ছিলো। এ সময় রবিউল ও আল আমিন দুই বন্ধু নিজেদের পেশীশক্তি পরীক্ষা করতে মারামারির খেলা করে। একজন অপরজনকে ঘুষি মারতে থাকে। একপর্যায়ে আল আমিনের ঘুষিতে রবিউল দেয়ালে সজোরে মাথায় আঘাত পেয়ে নিচে পড়ে যায়। পরে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেললে সিড়ির নিচে কার্টন ও পুরাতন প্যান্ট দিয়ে রবিউলকে ঢেকে রাখে আল আমিন। ভয়ে কাউকে কিছু বলতে পারে না সে। এভাবে তিন দিন পর গত রোববার লাশের দুর্গন্ধ বের হলে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পরে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেই দিনে মামলা রুজু হয় থানায়।

নিহত রবিউল ইসলাম আশুলিয়ার দুর্গাপুর এলাকায় বাবা সুমন হোসেনের সঙ্গে ভাড়া বাসায় থাকে। এর আগে বাড়ির মালিক আল আমিন শেখের কাছে পাওনা টাকা চাওয়ায় তার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছিলো নিহতের পরিবার।





Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.