Khorkuto: বরের হাতে কিডন্যাপ হয়ে দারুন খুশি গুনগুন! টুপি পরাচ্ছে ড্যাডিকেই

0 8


যাক বাবা শান্তি। শ্বশুরবাড়ির সবার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝি মিটে গিয়েছে গুনগুনের। আর শান্তি পেয়েছে ‘খড়কুটো’র দর্শকও। পটকা অ্যান্ড কোম্পানির দ্বারা কিপন্যাপ হয়ে শ্বশুরবাড়িতে এসে বেশ খুশি সে। আসলে ড্যাডির বিরোধিতা করতে না পারলেও সে মনে মনে মিস করছিল পরিবারকে। বিশেষ করে সৌজন্য আর পুচুসোনাকে। 

‘খড়কুটো’র ভাইরাল হওয়া ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, সৌজন্যর বাড়িতে থাকতে-থাকতেই তার কাছে আসে ড্যাডির ফোন। চিন্তিত কৌশিকবাবু মেয়ের কাছে জানতে চান এত দেরি করে বাড়ি ফেরার কারণ। এখন কোথায় আছে সে! আর ড্যাডিকে ঢপ দিয়ে গুনগুন জানায় সে আছে স্বর্ণালী নামের এক বন্ধুর বাড়িতে। যার বাড়ি বালিগঞ্জ।




শুধু তাই নয়, নিজের ঘরে গিয়ে আলাদা করে সৌজন্যর সঙ্গে বসে প্ল্যান করে এবার থেকে ইউনিভার্সিটি বাঙ্ক করে সে আর বাবিন বাইরে দেখা করবে। যাতে সায় দেয় বাবিনও। আর বাড়ির সকলে বরাবরের মতো ঘরের বাইরে থেকে আড়ি পেতে শোনে তাঁদের প্ল্যান।

শুধু তাই নয়, নিজের ঘরে গিয়ে আলাদা করে সৌজন্যর সঙ্গে বসে প্ল্যান করে এবার থেকে ইউনিভার্সিটি বাঙ্ক করে সে আর বাবিন বাইরে দেখা করবে। যাতে সায় দেয় বাবিনও। আর বাড়ির সকলে বরাবরের মতো ঘরের বাইরে থেকে আড়ি পেতে শোনে তাঁদের প্ল্যান। |#+|

শেষ মাসে গুনগুনের জা মিষ্টির মেয়ে পুচুসোনাকে নিয়ে ঝামেলায় লেগেছিল পরিবারে। মেয়ের প্রতি গুনগুনের আধিপত্য মেনে নিতে পারেনি মিষ্টি। গুনগুনকে ভুল বুঝেছিল বাবিন ও তাঁর পরিবারও। যার ফলে কৌশিকবাবু মেয়েকে নিয়ে যায় নিজের কাছে। এবং জানিয়ে দেয় এবার নিজের লেখাপড়া শেষ করবে গুনগুন। চাকরি করবে। আর আলাদা হয়ে যাবে সৌজন্যর থেকে। আর কখনও ওই বাড়িতে সে ফিরবে না!



Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.