উত্তমকুমারের ‘স্বত্ত্ব’ নিয়ে আইনি নোটিস পেলেন তাঁরই নাতি গৌরব চট্টোপাধ্যায়!

0 8


‘উত্তমকুমার’ নিয়ে চরম দ্বন্দ উঠে এল টলিপাড়ায়। গোল বাঁধল মহানায়কের স্বত্ত্ব নিয়ে। এবার উত্তমকুমারের ‘স্বত্ত্ব’ নিয়ে আইনি নোটিস পেলেন তাঁরই নাতি গৌরব চট্টোপাধ্যায়! ‘অচেনা উত্তম’-এর প্রযোজনা সংস্থার তরফে মঙ্গলবার সকালে তাঁকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে।অতনু বসু পরিচালিত ছবি ‘অচেনা উত্তম’-এর প্রযোজনা সংস্থার দাবি চুক্তিপত্রের শর্ত অমান্য করার জন্যেই তাঁদের তরফে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তবে শুধু গৌরব নয়, আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে ‘অতি উত্তম’ ছবির পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় এবং তাঁর সেই ছবির নির্মাতা সংস্থা ক্যামেলিয়া প্রোডাকশন হাউসকেও।

আইনি নোটিশ পাঠানোর পিছনে যুক্তি হিসেবে ‘অচেনা উত্তম’ ছবির প্রযোজক সংস্থা অলকানন্দা আর্টসের তরফে বলা হয়েছে তাদের সঙ্গে উত্তম-পুত্র গৌরব চট্টোপাধ্যায়ের যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল তাতে স্পষ্ট বলা হয়েছিল মহানায়কের নাম ও ছবি অন্য সিনেমার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যাবে না। অথচ সৃজিতের ছবির পোস্টার জুড়ে শুধু উত্তমের ছবিই নেই, সঙ্গে শিরোনামেও রয়েছে মহানায়কের নাম। 




‘উত্তমকুমার’ নিয়ে চরম দ্বন্দ উঠে এল টলিপাড়ায়। গোল বাঁধল মহানায়কের স্বত্ত্ব নিয়ে। এবার উত্তমকুমারের ‘স্বত্ত্ব’ নিয়ে আইনি নোটিস পেলেন তাঁরই নাতি গৌরব চট্টোপাধ্যায়! ‘অচেনা উত্তম’-এর প্রযোজনা সংস্থার তরফে মঙ্গলবার সকালে তাঁকে আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে।অতনু বসু পরিচালিত ছবি ‘অচেনা উত্তম’-এর প্রযোজনা সংস্থার দাবি চুক্তিপত্রের শর্ত অমান্য করার জন্যেই তাঁদের তরফে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তবে শুধু গৌরব নয়, আইনি নোটিস পাঠানো হয়েছে ‘অতি উত্তম’ ছবির পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায় এবং তাঁর সেই ছবির নির্মাতা সংস্থা ক্যামেলিয়া প্রোডাকশন হাউসকেও।

আইনি নোটিশ পাঠানোর পিছনে যুক্তি হিসেবে ‘অচেনা উত্তম’ ছবির প্রযোজক সংস্থা অলকানন্দা আর্টসের তরফে বলা হয়েছে তাদের সঙ্গে উত্তম-পুত্র গৌরব চট্টোপাধ্যায়ের যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল তাতে স্পষ্ট বলা হয়েছিল মহানায়কের নাম ও ছবি অন্য সিনেমার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা যাবে না। অথচ সৃজিতের ছবির পোস্টার জুড়ে শুধু উত্তমের ছবিই নেই, সঙ্গে শিরোনামেও রয়েছে মহানায়কের নাম। 

|#+|

যদিও এ প্রসঙ্গে উত্তম পৌত্র গৌরব জানিয়েছেন যে অলকানন্দা আর্টসের সঙ্গে চট্টোপাধ্যায় পরিবারের যে চুক্তি হয়েছিল তা শুধুমাত্র জীবনীর জন্য। আর সেখানে সৃজিত মুখোপাধ্যায় উত্তমকুমারের জীবনী তৈরি করেননি। মহানায়কের অভিনীত বেশ কয়েকটি ছবির শুধুই ক্লিপিংস ব্যাবহার করেছেন। তাছাড়া তাঁর দাদুর সেই ছবিগুলির স্বত্ব যে তাঁর কাছে নেই সেকথাও খোলাখুলি জানিয়েছেন তিনি। বলেন, যে প্রযোজনা সংস্থার কাছে আছে, তারাই স্বত্ব দিয়েছে সৃজিতদের। মহানায়কের পরিবার স্রেফ তা ব্যবহার করার অনুমতি দিয়েছেন। আর অলকানন্দা আর্টসের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরের বহু আগেই সৃজিতের সঙ্গে তাঁর সেসব কথা ও চুক্তির পাট চুকে গেছিল।

অলকানন্দা আর্টসের তরফে আরও বলা হয়েছে সৃজিতের এই ছবিতে অভিনয় করছেন উত্তম কুমারের নাতি গৌরব চট্টোপাধ্যায়ও। ওই চুক্তিপত্রে নাকি এও লেখা ছিল মহানায়কের পরিবারের কোনও সদস্য তাঁদের আসল পরিচয় নিয়ে কোনও ছবিতে অভিনয় করতে পারবেন না। করতে চাইলে অলকানন্দা আর্টসের তরফ থেকে অনুমতি নিতে হবে। গোটা চুক্তিপত্রটি যে মোটা টাকার বিনিময়ে স্বাক্ষরিত হয়েছিল সেকথাও ফলাও করে এই প্রযোজনা সংস্থা জানিয়েছে। 

'অচেনা উত্তম' ছবির পরিচালক অতনু বসুর সঙ্গে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় এবং ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)
‘অচেনা উত্তম’ ছবির পরিচালক অতনু বসুর সঙ্গে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় এবং ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত। (ছবি সৌজন্যে – ফেসবুক)

পাল্টা গৌরব চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘ অলকনন্দা আর্টসকে দাদুর জীবনীর ওপর ছবি স্বত্ব দেওয়া হয়েছে সারা জীবনের জন্য। হিসেব করলে, তার মূল্য হওয়া উচিত কোটির কাছে। কিন্তু আমার মতে, অত টাকার হিসেব তো হয়নি’। পাশাপাশি গৌরব চট্টোপাধ্যের আরও দাবি, অভিনেতা হিসেবে তিনি যে কোনও চরিত্রে অভিনয় করতে পারেন। সেটি তাঁর পেশা। সেখানে কারও কোনও বক্তব্য থাকতে পারে না।

অন্যদিকে সৃজিত মুখোপাধ্যায় এই প্রসঙ্গে জানিয়েছেন যে গোটা ব্যাপারটির সমাধান করতে পারবেন একমাত্র গৌরব চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর আইনজীবী। আর ওঁদের তরফে খুব তাড়াতাড়ি সেই আইনি নোটিশের জবাব দেওয়া হবে।



Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.