রুনা লায়লা ও আলমগীরের বাড়িতে অতিথি শ্রীলেখা

0 10


হাইলাইটস

  • শ্রীলেখা শেয়ার করলেন বাবা-র সঙ্গে বাংলাদেশ ভ্রমণের স্মৃতি
  • শ্রীলেখার বাবার আদি বাড়ি বাংলাদেশে
  • শ্রীলেখা ও তাঁর বাবার বাংলাদেশের কাহিনী শুনে ওপার বাংলা থেকে অভিনেতা আলমগীর ও গায়িকা রুনা লায়লা আমন্ত্রণ জানান অভিনেত্রী ও তাঁর বাবাকে

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: বাবাকে ছাড়াই দিন কাটছে অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রের। বাবা নেই মানতে পারছেন না অভিনেত্রী। জুরিখ থেকে ফিরে বাবার সঙ্গে আর দেখা না হওয়ার আক্ষেপও করেছেন। তার মধ্যেই বাবার সঙ্গে কাটানো এক ভ্রমণের স্মৃতি শেয়ার করলেন অভিনেত্রী। শ্রীলেখা শেয়ার করলেন বাবা-র সঙ্গে বাংলাদেশ ভ্রমণের স্মৃতি। অভিনেত্রীর কথায়, এই ঘোরাটা ছিল তাঁর বাবার স্বপ্নপূরণের গল্প।

শ্রীলেখার বাবার আদি বাড়ি বাংলাদেশে। তাঁদের শিকড় ওপার বাংলাতেই। ছোট থেকেই সেই দেশের গল্প শুনে বড় হয়েছেন। অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘বাবার মুখে বাংলাদেশ মাদারিপুরের ঘটমাঝি গ্রামে জমিদারিরর গল্প শুনে বেড়ে ওঠা। মিত্তিরদের পুজো, মিত্তিরদের ঘাট, মিত্তিরদের বাজার, পোস্ট অফিস, শ্মশান… অগণিত মানুষের মতো দেশভাগের শিকার আমারাও’।

কালো ব্রালেটে ঝড় তুললেন শুভশ্রী
২০১৭ সালে অভিনেত্রী তাঁর বাংলাদেশ ভ্রমণ সম্পর্কে জানান, এক রিয়্যালিটি শো’য়ে শ্রীলেখা ও তাঁর বাবার বাংলাদেশের কাহিনী শুনে ওপার বাংলা থেকে অভিনেতা আলমগীর ও গায়িকা রুনা লায়লা আমন্ত্রণ জানান অভিনেত্রী ও তাঁর বাবাকে। শ্রীলেখা তাঁর সেই পোস্টে এই কথা জানিয়ে লিখেছেন, ‘চলে গেলার বাপ বেটি মিলে ২০১৭ সালে দেশের বাড়ির খোঁজে।‘

সেখানে গিয়ে বাংলাদেশের জনপ্রিয় গায়িকা Runa Laila ও আলমগীরের বাড়িতে অতিথি হিসেবে অ্যাপায়ন পেয়ে আপ্লুত হয়েছিলেন নায়িকা। শ্রীলেখার কথায়, ‘রুনা লায়লা আপু ও আলমগীর ভাইয়ের বাসায় আমাদের যত্নের কথা কী আর বলব! ছোটবেলায় টিভিতে দেখা দম দম মস্তকালন্দর, সাধের লাউ আরও কত গান, ওঁরা শুধু ধনী নন, মনের দিকে থেকে তার থেকে বেশি ধনী।‘ সে দেশে বাবাকে নিয়ে যেতে পারাটাই অভিনেত্রীর কাছে প্রাপ্তির মতো।

বসিরহাট থেকে ফিরে এসেই পার্টিতে মজে যশ-নুসরত
বেশ কিছু বছর আগে মা-কে হারিয়েছিলেন অভিনেত্রী। তারপর বাবাই ছিলেন তাঁর বেস্ট ফ্রেন্ড, তাঁর গাইড। বলা যায়, বাবা সন্তোষ মিত্রকে বেশ কিছুটা আগলেই রাখতেন শ্রীলেখা। কিছুদিন আগেই বাবার সঙ্গে ছবি তুলে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন শ্রীলেখা। কোনও পারিবারিক অনুষ্ঠানে একই রঙের পোশাক পরে গিয়েছিলেন দু’জনে। অভিনেত্রী লিখেছিলেন, ‘আমি ও বাবা… সেম সেম…’। ম্যাচিং পোশাকের বিষয়টি বোঝানোর জন্যই ওই ক্যাপশন দেন তিনি। এমনকী রাজনীতিক দৃষ্টিভঙ্গির ক্ষেত্রেও ‘সেম সেম’ তাঁরা। আসলে বাবা সন্তোষ মিত্রের সঙ্গে অসম্ভব ভালো বন্ড শেয়ার করতেন শ্রীলেখা। তাঁর যে কোনও সিদ্ধান্তে সবসময় পাশে পেয়েছেন বাবাকে।



Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.