‘এত জলদি এত বড় পদ কীভাবে’, কদর্য ইঙ্গিত তৃণমূলের সায়নীকে! যোগ্য জবাব নায়িকার

0 10


রাজনীতি আর অভিনয়– দুটোই একসঙ্গে সামলাচ্ছেন সায়নী ঘোষ। বিধানসভা ভোটে হার হলেও তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে বসিয়েছেন দলের যুব সভানেত্রীর আসনে। আর ‘প্রিয় দিদি’র মর্যাদা রাখতে সবরকম চেষ্ট করে যাচ্ছেন তিনি। রাজনীতিতে পা দেওয়ার পর এই প্রথম তাঁকে দেখা যাবে রুপোলি পরদায়। অনীক দত্তের ছবিতে অভিনয় করছেন সায়নী।

সেট থেকে নানা BTS  অর্থাৎ বিহাইন্ড দ্য সিন মোমেন্ট শেয়ার করে থাকেন সায়নী। এদিনও তেমনটাই করেছিলেন। বোঝা যাচ্ছে, শ্যুট নিয়েই টিমের সঙ্গে কথা বলছেন। ছবির ক্যাপশনে লিখেছিলেন টিম এফোর্টের কথা। আর সেই ছবিতেই এক নেটিজেন প্রশ্ন করেন সায়নীকে। যাতে নোংরা ইঙ্গিত চোখে পড়েছে কারও কারও। নায়িকার কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে, ‘বলছি দিদি আমার সাদা মনে কাদা মাখা একটাই প্রশ্ন, এত তাড়াতাড়ি এত বড় পদ পেলেন কীভাবে?’




সায়নীর ফেসবুক পোস্টে সেই কমেন্ট। 
সায়নীর ফেসবুক পোস্টে সেই কমেন্ট। 

জবাব দিতে দেরি করেননি সায়নী। ছোট্ট কথায় দিয়েছেন মোক্ষম জবাব। অভিনেত্রী ও তৃণমূলের যুবনেত্রী লিখেছেন, ‘ভগবানের নিজের সন্তান’। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে নিয়ে কোনও বিতর্ক হলে, ট্রোলিং হলে বা কুরুচিকর মন্তব্য হলে এর আগেও জবাব দিয়েছেন। এবারেও তেমনটাই হল। অনেকেই সায়নীর উপস্থিত বুদ্ধির তারিফ করেছেন ও একহাত নিয়েছেন ওই প্রশ্নকারী ছেলেটিকে। 

প্রসঙ্গত, ফ্লোরে ফিরছেন তিনি দিন কয়েক আগেই। সৌজন্যে পরিচালক অনীক দত্তের পরবর্তী ছবি ‘অপরাজিত’। সেখানে এক গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। ছবিতে তাঁর চরিত্রে নাম বিমলা রায়। এর আগেও অনীক দত্তর সঙ্গে ছবিতে কাজ করেছেন সায়নী। এই বছর সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবর্ষ। মূলত তাঁকে ট্রিবিউট জানাতেই এই ছবি তৈরির কথা ভেবেছেন নির্মাতারা।



Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.