‘মায়েদের একটা গন্ধ থাকে’

0 6


হাইলাইটস

  • এ বার পুজোয় আসছে ‘বনি’। পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের পরিচালনায় কাজ করেছেন কোয়েল।
  • ২০০৩ সালে কোয়েল টলিউডে পা রেখেছিলেন ‘নাটের গুরু’ ছবিতে।
  • এক সময় বাংলা ছবিতে ব্যবসার যে অঙ্ক তিনি দেখেছেন, এখন তার চেয়ে অনেক পিছিয়ে বাংলা ছবির ব্যবসার অঙ্ক।

টলিপাড়ার অনেক নায়িকার সঙ্গে তাঁর ফারাক হলো, কোনও বিতর্কের উপর ভর করে আলোচনার কেন্দ্রে থাকেন না তিনি। নিজের ছবির জন্যই যথেষ্ট চর্চিত। আর এখন পুজোতে কোয়েল মল্লিকের ছবি মুক্তি পাবে, এটা যেন নিয়ম হয়ে গিয়েছে। কেমন লাগে বিষয়টা? কোয়েলের উত্তর, ‘আমাদের বাড়ির পুজোর জন্য বেশি বেরোতাম না ছোটবেলা থেকেই। কিন্তু মেজমা’র সঙ্গে আমরা সবাই মিলে ছবি দেখতে যেতাম। তাই পুজোয় যখন নিজের ছবি মুক্তি পায়, ভীষণ ভালো লাগে’।

এ বার পুজোয় আসছে ‘বনি‘। পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের পরিচালনায় কাজ করেছেন কোয়েল। অভিনেত্রী স্পষ্ট করলেন, ‘যেহেতু শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের লেখা গল্প, তাই যখন এই ছবিটার প্রস্তাব পাই, সম্মানিত বোধ করেছিলাম। একজন বায়োসায়েন্টিস্টের চরিত্র করছি। এক দম্পতির গল্প। তারা সন্তান আসার জন্য অপেক্ষা করছিল। কিন্তু যখন বাচ্চার জন্ম হয়, অনুভব করতে পারে, তাকে ঘিরে কোনও ষড়যন্ত্র হয়েছে। তাই বাচ্চাটা স্বাভাবিক নয়। একজন মা হিসেবে চরিত্রটা মনে করে, সত্যিটা খুঁজে বের করতেই হবে তাকে’।

‘শেষ পাতা’র শ্যুটিং শেষে পরিচালকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ প্রসেনজিৎ
২০০৩ সালে কোয়েল টলিউডে পা রেখেছিলেন ‘নাটের গুরু’ ছবিতে। ১৮টা বছর শীর্ষে থাকা সহজ নয়। এক সময় বাংলা ছবিতে ব্যবসার যে অঙ্ক তিনি দেখেছেন, এখন তার চেয়ে অনেক পিছিয়ে বাংলা ছবির ব্যবসার অঙ্ক। বিষয়টা কী ভাবে দেখেন? কোয়েল ব্যাখ্যা করলেন, ‘সে সময় এত তাড়াতাড়ি নতুন ছবি চ্যানেল বা ওটিটি প্ল্যাটফর্মে দেখা যেত না। অভিনেত্রী হিসেবে আমি মনে করি, একটা কাজ করলে, সেটা যেন মানুষ দেখতে পান। সে যে মাধ্যমেই হোক। সময়ের সঙ্গে-সঙ্গে অনেক কিছু পালটায়। সেটা নিয়ে কষ্ট না পেয়ে মানিয়ে নেওয়া জরুরি বলে আমি মনে করি। যদিও এটা ঠিক, সিনেমা হলে দর্শক যখন যান, শুধুমাত্র ছবিটাই দেখেন। বাড়িতে ছবি দেখলে হয়তো খেয়াল রাখতে হয় প্রেসার কুকারের তিন নম্বর সিটিটা পড়ল কিনা’।

কোয়েল চিরকালই প্রাইভেট পার্সন। সোশ্যাল মিডিয়াতে সাধারণত নিজের কাজের বিষয়েই পোস্ট করেন। আর অনুরাগীদের জন্য ব্যক্তিগত জীবনের হাতেগোনা কিছু মুহূর্ত তুলে ধরেন। তার থেকেই স্পষ্ট, অভিনেত্রীর জীবন ঘিরে এখন রয়েছে তাঁর ছেলে কবীর। এক বছর পাঁচ মাস বয়স। কবীর কি ‘বনি’র প্রোমোতে বা টিভিতে কোয়েলকে দেখেছে? অভিনেত্রী হেসে জানালেন, ‘এখনও দেখেনি। সুকুমার রায়ের লেখা ছড়া পড়ে। ইংরেজি রাইমস পড়ে। আমি যেহেতু বাড়িতে একদম অন্য রকমভাবে থাকি, তাই যখন প্রচারে বা কাজে সেজেগুজে বের হই, ও দেখে মা পালটে যাচ্ছে। আবার এ বছর ‘মহালয়া’-র অনুষ্ঠান শুটিংয়ের শেষে তৃতীয় চোখটা আঁকা অবস্থাতেই বাড়ি ফিরেছিলাম। ও দেখে কী বলে, সেটা দেখার জন্য। দেখে হাসলো। মায়েদের একটা গন্ধ থাকে। ও সেটার জন্যই আমাকে চিনতে পারে, সাজ বদলালেও’।

জলের তলায় রাজ-শুভশ্রী!
এখন নাকি সারাদিন ছেলের পিছনে ছুটতে হয় অভিনেত্রীকে। কোয়েল বলছেন, ‘কবীরের খাওয়ার অভ্যেস আমার মতো। আমি উচ্ছে, ওটস এ সব হেলদি খাবার যেমন পছন্দ করি, তেমনই স্পাইসি খাবারও পছন্দ করি। ও এখন বাড়িতে রান্না করা খাবারই খায়। তবে এক জায়গায় বসে খেতে চায় না। দৌড়ে বেড়ায়। আমিও ওর পিছনে ছুটি। আবার মুখে খাবার নিয়ে চুপ করে যায়। তখন আবার ওকে বোঝাই, ওটা খেয়ে নিতে হবে। এক্সারসাইজ করার সঙ্গে সঙ্গে এ ভাবেই আমার ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে’। বলে হাসলেন তিনি।

ইউটিউবার কিরণকে নিয়ে পাভেলের ‘কলকাতা চলন্তিকা’
মজার ব্যাপার হলো, কোয়েল মা হওয়ার পর ‘বনি’ মুক্তি পেলেও, ২০১৯-এ যখন এই ছবির শুটিং হয়েছিল, তখন তিনি সন্তানসম্ভবা ছিলেন না। এখন যেহেতু নতুন মা হিসেবে তিনি উদাহরণ, তাই ‘বনি’-র সঙ্গে বেশি করে মিলে যাচ্ছেন। শুটিংয়ে কিছুটা বিরতি থাকলেও, সামনেই কি মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে একটা ছবিতে দেখা যাবে তাঁকে? কোয়েল জানালেন, এখনও এ রকম কিছু চূড়ান্ত হয়নি।



Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.