সকালে জেলে ভর, রাতে মুক্ত কর! আরিয়ান খান ইস্যুতে ক্ষণে ক্ষণে ভোলবদল নেটিজেনদের

0 9


হাইলাইটস

  • আরিয়ান খানের গ্রেফতারি প্রসঙ্গে দু’ভাগে বিভক্ত নেটপাড়া।
  • বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিং আরিয়ান খান।
  • #ReleaseAryanKhan, #AryanKhanDrugCase, #SendAryanKhanToJail –এর মতো হ্যাশট্যাগগুলি টুইটারে ট্রেন্ডিং।

এই সময় ডিজিটাল ডেস্ক: আরিয়ান খানের গ্রেফতারি প্রসঙ্গে ক্ষণে ক্ষণে ভোলবদল করছেন নেটিজেনরা। বর্তমানে এই ইস্যুতে দু’ভাগে বিভক্ত নেটপাড়া। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রেন্ডিং আরিয়ান খান। #ReleaseAryanKhan, #AryanKhanDrugCase, #SendAryanKhanToJail –এর মতো হ্যাশট্যাগগুলি টুইটারে ট্রেন্ডিং। সকালের দিকে ‘সেন্ড আরিয়ান খান টু জেল’ হ্যাশট্যাগ ভাইরাল হলেও, পরবর্তীতে ‘রিলিজ আরিয়ান খান’ ব্যাপক হারে ভাইরাল হয়। Twitter -এর ট্রেন্ডিং তালিকার এক নম্বরে ছিল তা। শাহরুখ ভক্তরা আরিয়ানকে মুক্তি দেওয়ার দাবি তোলেন। এদিন #WeStandWithSRK, #WeStandWithKingKhan এর মতো হ্যাশট্যাগও ট্রেন্ড করছিল নেটপাড়ায়। কেউ দাবি করছেন, ‘শাহরুখ পুত্রকে ফাঁসানো হয়েছে।’ কেউ আবার বলছেন, ‘দোষ করলে শাস্তি পেতেই হবে।’ সবমিলিয়ে আরিয়ান খানের গ্রেফতারি প্রসঙ্গে নেটপাড়ায় তর্কবিতর্ক তুঙ্গে।

গত ৩ অক্টোবর আরিয়ানের আটক হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসার খবর নেটপাড়ায় ভেসে ওঠার পরেও ব্যাপারটি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন একাধিক নেটিজেন। গোটা বিষয়টিকে ভুয়ো খবর বলে উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছিল। ওইদিন NCB আরিয়ান খানকে আটক করার খবরে সিলমোহর দেওয়ার পরেই বিষয়টি নিয়ে তুলকালাম শুরু হয়। এখন নেটপাড়ায় সবচেয়ে বড় প্রশ্ন, শাহরুখ পুত্র কি পরিস্থিতির শিকার? নাকি আসলে দোষী? যদিও এর উত্তর এখনও মেলেনি।

এদিন মুম্বইয়ের আদালত আরিয়ানকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে। যদিও করোনা পরিস্থিতির কারণে বিকেলে তাঁকে জেলে নিয়ে যাওয়া হয়নি। বৃহস্পতিবার রাতে NCB দফতরেই রাখা হবে আরিয়ানকে। কিন্তু, কেন? আসলে মহামারীর মধ্যে অভিযুক্তকে জেলে নিয়ে যাওয়ার নিয়ম পরিবর্তিত হয়েছে। বিকেল ছ’ টার পরে কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট ছাড়া কোনও অভিযুক্তকে জেলে নিয়ে যাওয়া যায় না। এদিন সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ সুপারস্টারের পুত্রের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয় কোর্ট। আর সেই কারণেই আরিয়ান সহ বাকিদের জেলে নিয়ে যাওয়া যায়নি। আরিয়ানের আইনজীবী সতীশ মানেশিন্ডে আরিয়ান সহ বাকিদের এদিন রাতে NCB অফিসে রাখার আবেদন জানিয়েছিলেন। তদন্তকারী সংস্থার জোনাল ডিরেক্টর সমীর ওয়াংখেড়ের তত্ত্বাবধানে তাঁদের রাখার আর্জি জানান মানেশিন্ডে। শুক্রবার বেলা ১১টা নাগাদ আরিয়ানের অন্তর্বর্তী জামিনের শুনানি রয়েছে। বলা চলে, ওইদিন তাঁর ভাগ্যপরীক্ষা।

এদিন সকালেই আরিয়ানের সমর্থনে একটি পোস্ট লেখেন বলিউড সুপারস্টার হৃত্বিক রোশন। তিনি লেখেন, আরিয়ান তুমি হিরো হয়েই বেরিয়ে আসতে পারবে। ডুগ্গুর ওই পোস্টে আলিয়া ভাট সহ বলিউডের একাধিক তারকা লাভ রিঅ্যাকট করেছেন। এদিনই মন্নতে পৌঁছেছেন শাহরুখের বন্ধু তথা জনপ্রিয় পরিচালক ফারহা খান। জানা গিয়েছে, কঠিন সময়ে শাহরুখ ও গৌরীর পাশে দাঁড়াতেই তিনি মন্নতে গিয়েছিলেন।

অসময়ে শাহরুখের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন সলমন খানও। আরিয়ানের গ্রেফতারির খবর পেয়েই ভাইজান মন্নতে যান এবং সাক্ষাৎ করেন কিং খানের সঙ্গে। ছেলের গ্রেফতারির পর থেকেই অন্তরালে চলে গিয়েছেন শাহরুখ। তবে গৌরী খানকে আদালতে দেখা গিয়েছিল। এদিন আদালতে উপস্থিত ছিলেন শাহরুখের ম্যানেজার পূজা দদলানিও। আদালতের নির্দেশ শোনার পর প্রকাশ্যেই কাঁদতে দেখা যায় তাঁকে।



Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.