NCB তল্লাশিতে কেন বহিরাগত? নতুন তরজা

0 5


হাইলাইটস

  • শাহরুখ-পুত্র আরিয়ানের মাদক-মামলার সূত্র ধরে এ বার পুরোদস্তুর শুরু হয়ে গেল রাজনৈতিক লড়াই।
  • মাদকের তল্লাশিতে গিয়ে তবে কি স্টার-পুত্রের সঙ্গে সেলফি তুলতে ব্যস্ত এনসিবি আধিকারিকরা?
  • এনসিবি-র তল্লাশি চালানোর সময়ে তিনি সেখানে গেলেন কী করে? কী ভাবেই বা সেলফি তুললেন?

মুম্বই:এনসিবি বনাম এনসিপি!

শাহরুখ-পুত্র আরিয়ানের মাদক-মামলার সূত্র ধরে এ বার পুরোদস্তুর শুরু হয়ে গেল রাজনৈতিক লড়াই। সৌজন্যে শনিবার রাতে আরিয়ানের গ্রেফতারির সময়ের তোলা একটি সেলফি। এনসিবির হাতে আটক হওয়ার পর লাল চেক-শার্ট, সাদা টি-শার্টে বসে আছেন আরিয়ান, তার সামনে বসে সেলফি নিচ্ছেন এক ভদ্রলোক।

আরিয়ানের আটক হওয়ার পর প্রথম ছবি হিসেবে এই সেলফি ভাইরাল হওয়ার পর প্রশ্ন উঠেছিল, মাদকের তল্লাশিতে গিয়ে তবে কি স্টার-পুত্রের সঙ্গে সেলফি তুলতে ব্যস্ত এনসিবি আধিকারিকরা? বিতর্ক এড়াতে নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি) বিবৃতি জারি করে, সেলফির ভদ্রলোক তাদের আধিকারিক নন। তা হলে তিনি কে? এনসিবি-র তল্লাশি চালানোর সময়ে তিনি সেখানে গেলেন কী করে? কী ভাবেই বা সেলফি তুললেন?

বুধবার তাঁর পরিচয় প্রকাশ করেছে ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টি (এনসিপি) আর তা ঘিরেই দানা বাঁধছে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার তত্ত্ব। প্রবীণ এনসিপি নেতা নবাব মালিকের দাবি, ‘শাহরুখ-পুত্রের গ্রেফতারির পর তাঁকে এনসিবি অফিসে হাত ধরে নিয়ে গিয়েছিলেন যিনি, তিনি কে পি গোসাভি। একজন প্রাইভেট গোয়েন্দা। আরিয়ানের সঙ্গে তাঁর তোলা সেলফি-ও ভাইরাল হয়। আমার প্রশ্ন, তিনি তো এনসিবি-র আধিকারিক নন, তা হলে এনসিবি অফিসে তিনি কী করছিলেন? জাহাজে তল্লাশি চলার সময়ে তিনি কী করছিলেন? দ্বিতীয় যে ব্যক্তি আরবাজ মার্চেন্টের হাত ধরে এনসিবি অফিসে নিয়ে যাচ্ছিলেন, তিনি মণীশ ভানুশালী। একাধিক ভিডিয়োয় তাঁর ছবি ধরা পড়েছে। উনি বিজেপির ভাইস প্রেসিডেন্ট। নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে দেবেন্দ্র ফড়ণবীশ, একাধিক বিজেপি নেতার সঙ্গে মণীশের ছবি রয়েছে। এনসিবি-র কাছে জানতে চাই, তাদের তল্লাশি চালানোর সময়ে এই লোকগুলো সেখানে কী করছিলেন? এই ধরনের হাই-প্রোফাইল তল্লাশির ক্ষেত্রে কি বাইরের লোককে নিয়ে যাওয়াই এনসিবির নীতি?’

‘নিজের খেয়াল রেখো কিং’, শাহরুখের পাশে দাঁড়ালেন ফ্যানেরা
মালিকের দাবি, মালয়েশিয়ার ডিটেকটিভ গোসাভির বিরুদ্ধে পুলিশি মামলা রয়েছে। সেই সঙ্গে তিনি এনসিবি আধিকারিকদের ঘনিষ্ঠ বলেও পরিচিত। অন্যদিকে, মণীশ গত ২১ এবং ২২ সেপ্টেম্বর দিল্লি ও গুজরাটে গিয়ে বিজেপি নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন। এনসিপি নেতার দাবি, ‘আরিয়ান খানের গ্রেফতারি পুরোটাই একটা ধাপ্পাবাজি! গত এক মাস ধরে মিডিয়ায় খবর ঘুরছে, পরবর্তী টার্গেট শাহরুখ খান। সেটাই সত্যি হল। বিজেপি এনসিবি-কে ব্যবহার করে বিরোধীদের হেনস্থা করতে চাইছে। যাঁরা বিজেপি বিরোধী তাঁদের বিরুদ্ধে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। পুরোটাই সাজানো! মাদক উদ্ধারের নাটক করে মহারাষ্ট্র সরকারকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা হচ্ছে।’

এনসিবির অবশ্য দাবি, তারা নিরপেক্ষ ভাবেই তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। শনিবার মুম্বই থেকে গোয়াগামী প্রমোদতরীতে মাদক-পার্টি করার সময়ে গ্রেফতার করা হয় শাহরুখ-পুত্র আরিয়ান সহ মোট আট জনকে। তদন্তের স্বার্থে শাহরুখ-পুত্রের হেফাজত বৃহস্পতিবার অবধি বাড়ানো হয়। তাঁকে এবং ধৃত আরবাজ মার্চেন্টকে জিজ্ঞাসাবাদের সূত্র ধরে এখনও অবধি মোট ১৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে এনসিবি।

ছেলে হেফাজতে, স্পেনে পাঠানের শ্যুটিং বাতিল করলেন শাহরুখ
বুধবার নবাব মালিকের অভিযোগের পর সাংবাদিক বৈঠকে এনসিবি আধিকারিক জ্ঞানেশ্বর সিংয়ের বক্তব্য, ‘এই অভিযোগগুলো ভিত্তিহীন। এনসিবি আইনি পথে, পেশাদারিত্বের সঙ্গে স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ তদন্ত চালাচ্ছে।’ এনসিবি-র দাবি, আরিয়ানের সঙ্গে সেলফি তোলা গোসাভি আদতে ‘পঞ্চনামা সাক্ষী’ বা নিরপেক্ষ সাক্ষী। তবে মণীশের উপস্থিতি নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি এনসিবি।

তবে বিজেপি এ ব্যাপারে দলের যোগ অস্বীকার করেছে। বিজেপি মুখপাত্র রাম কদমের বক্তব্য, ‘রাজনীতি করার অনেক বিষয় রয়েছে। মাদকের মতো বিষয় নিয়ে আমাদের কারওরই রাজনীতি করা উচিত নয়, কারণ এর সঙ্গে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের বিষয়টি জড়িত।’ মহারাষ্ট্রে বিজেপির মুখপাত্র কেশব উপাধ্যায়ের দাবি, ‘এখানে মাদকের বিরুদ্ধে লড়াইটাই আসল। মাদকের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের এনসিপি-র সাহায্য প্রয়োজন। আমি জানতে চাই, এনসিপি কি শুধু আরিয়ানকে সমর্থন করছে, নাকি ওদের অন্য কোনও মোটিভ রয়েছে?’

মায়ের পাঠানো বার্গারে না NCB-র, মেসেরই চাল-ডাল পথ্য খান তনয়েরসোমবারের শুনানিতে স্পেশাল প্রসিকিওটর মজা করে বলেছিলেন, এই মামলার পরতে পরতে রহস্য আগাথা ক্রিস্টি ও শার্লক হোমসের বইকেও হার মানাবে। এ দিন মামলায় রাজনৈতিক রং যেন সেই মন্তব্যেই সমর্থন করছে!



Source link

Leave A Reply

Your email address will not be published.